আপডেট ২৩ min আগে ঢাকা, ১৮ই অক্টোবর, ২০১৭ ইং, ৩রা কার্তিক, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২৬শে মুহাররম, ১৪৩৯ হিজরী

Breaking News
{"effect":"fade","fontstyle":"Bold","autoplay":"true","timer":4000}

প্রচ্ছদ জাতীয়

Share Button

এক মঞ্চে সোনিয়া-মমতাঃএই বিরোধী মহাজোটই হটাবে মোদিকে- মমতা

| ২৩:৪২, আগস্ট ১১, ২০১৭

সন্দীপ স্বর্ণকার, নয়াদিল্লি, ১১ আগস্ট: দেশজুড়ে জোট গড়ে গণআন্দোলন ছড়িয়ে দেওয়ার ডাক দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ১৮টি দলের বিরোধী জোটের বৈঠকে সোনিয়া গান্ধীকে মমতা বলেছেন, বিজেপিকে তাড়াতেই হবে। আর বিজেপি’কে ভারত ছাড়া করার কাজটা করবে এই জোটই। আ‌জ সংসদের বাদল অধিবেশন শেষ হয়ে গেল। কিন্তু এখন আর চুপ করে থাকার সময় নেই। রাস্তায় নামতে হবে। শুধু মুখেই নয়, মমতা আজ রীতিমতো এই বৈঠকে রোডম্যাপ দিয়ে বলেছেন, ২৭ আগস্ট যেভাবে বিহারে লালুপ্রসাদ যাদব মহাসমাবেশের ডাক দিয়েছেন, ঠিক সেভাবেই অন্য রাজ্যেও একইভাবে বিক্ষোভ, মিছিল, সমাবেশ করে মোদি সরকারকে বার্তা দিতে হবে। মমতার সাফ কথা, দেশ থেকে আওয়াজ উঠেছে বিজেপি ভারত ছাড়ো। তাই তাঁর প্রস্তাব, এরপর মহারাষ্ট্রে সমাবেশ করা হোক আর্থিক জরুরি অবস্থা জারির বিরোধিতায়, উত্তরপ্রদেশের সমাবেশের অ্যাজেন্ডা হোক কৃষকসমস্যা এবং তামিলনাড়ুতেও কৃষি বিপর্যয়কেই সামনে রেখে মহাজোটের আন্দোলন শুরু হোক। প্রতিটি রাজ্যে একই ধাঁচের গণ সমাবেশের ডাক দেওয়া হোক। মমতা বলেছেন, একজোট হয়ে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর বার্তা দিলে বিজেপিকে হারতেই হবে।

 

 

একইসঙ্গে মমতার পরামর্শ তাবৎ বিরোধী দলকে সমস্ত ভেদাভেদ ভুলে এইসব সমাবেশে হাজির হয়ে মহাজোটের উপস্থিতিকে প্রবল করতে হবে। মমতার এই তীব্র আক্রমণাত্মক কর্মসূচির আহ্বানে আজ দীর্ঘ ২ ঘন্টার বৈঠকে বারংবার সোনিয়া উচ্ছ্বসিত হয়ে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীকে সমর্থন করেছেন। তিনি বৈঠকের মধ্যেই একমত হয়ে বলেছেন এটাই সঠিক পথ। বস্তুত আজ মমতার এই প্রস্তাবে ঐকমত্যের সুর শোনা গিয়েছে প্রায় সব দলের নেতাদের মুখেই। বিরোধী জোটের বৈঠকে আরও স্থির হয়েছে, আগামী ২৭ আগস্ট পাটনার গান্ধী ময়দান থেকেই শুরু হবে বিজেপি হঠাও অভিযানের সলতে পাকানোর কাজ। শুধু বৈঠকেই নয়, বৈঠকের আগে এবং পরে সোনিয়া গান্ধী দফায় দফায় মমতার সঙ্গে আলোচনা করেন আগামীদিনের কর্মসূচি এবং জোট গঠনের প্রক্রিয়া নিয়ে। বৈঠকে এবং বৈঠকের পর দেখা গেল দৃশ্যত দুই নেত্রীর সখ্য।

 

 

এদিন বৈঠকে সোনিয়ার ঠিক পাশের আসনে মনমোহন সিং বসেছিলেন এবং তাঁর ঠিক পাশের চেয়ারেই মমতাকে ডেকে নেন কংগ্রেস সভানেত্রী। বৈঠক শেষ হলে মমতার হাত ধরে সোনিয়া বেরিয়ে আসেন মিডিয়ার সামনে। সংসদের অধিবেশনে এবার শুরু থেকেই দেখা গিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস বস্তুত অঘোষিত জোট-কাণ্ডারির ভূমিকা নিয়েছিল। বিভিন্ন ইস্যুতে প্রতিটি সমমনস্ক দলকে নিয়ে সমন্বয় গড়ে রাজ্যসভা ও লোকসভায় জোটের বার্তা দিয়েছে তৃণমূল। আজ সেই সমন্বয়ের ভূমিকারও প্রশংসা করেন সোনিয়া। বিরোধী জোট না হলে যে বিজেপির আগ্রাসী অগ্রগমন বন্ধ করা যাবে না আজ বৈঠকে সেই বিষয়টি নিয়ে সকলেই একমত হয়েছেন।

 

 

বৈঠকে যোগ দেওয়ার আগে মমতা একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া দীর্ঘ সাক্ষাৎকারেও মহাজোটের প্রয়োজনীয়তা জানিয়ে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে জানিয়ে দেন যে ২০১৯ সালে বিজেপি যতটা অনায়াসে জয়ী হবে ভাবছে তা সম্ভব নয়। কারণ মানুষের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। আর সেই ক্ষোভকেই ভাষা দেবে মহাজোট। আজ সংসদের বাদল অধিবেশেন সমাপ্ত হওয়ার পর বিকেল সাড়ে চারটেয় সংসদের লাইব্রেরি ভবনে বিরোধীদের বৈঠক হয়। বৈঠকে স্থির হয়েছে, একটি ছোট কমিটি গঠন করা হবে। সেই কমিটির সদস্যরাই বিভিন্ন ইস্যুতে আন্দোলনের একটি পরিকল্পনা তথা কাঠামো গঠন করে ১৮ দলের নেতাদের সঙ্গে নিয়ম করে কথা বলবেন। তারপর একের পর এক কর্মসূচি স্থির হবে। এদিনের বৈঠকে সবথেকে বড় ধাক্কা অবশ্য শারদ পাওয়ারের দলের গরহাজিরা। আর প্লাস পয়েন্ট হল নীতীশ কুমার এনডিএ জোটে গেলেও তাঁর দল ভেঙে যেতে বসেছে। কারণ আজ নীতীশ কুমারের দলের শারদ যাদব পন্থী এমপি আনোয়ার আলি বিরোধীদের বৈঠকে হাজির হয়েছিলেন।

Comments are closed.







পাঠক

Flag Counter



Developed By : ICT SYLHET

Developer : Ashraful Islam

Developer Email : programmerashraful@gmail.com

Developer Phone : +8801737963893

Developer Skype : ashraful.islam625

error: Content is protected !!