আপডেট ২ ঘন্টা আগে ঢাকা, ১৭ই অক্টোবর, ২০১৭ ইং, ২রা কার্তিক, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২৬শে মুহাররম, ১৪৩৯ হিজরী

Breaking News
{"effect":"fade","fontstyle":"Bold","autoplay":"true","timer":4000}

প্রচ্ছদ আইন আদালত

Share Button

পদত্যাগ, অসুস্থ্য, নাকি জবরদস্তিঃ নানা গুঞ্জন-পেছনের ঘটনা

| ১৯:৫১, অক্টোবর ৩, ২০১৭

সুপ্রিম কোর্ট । ৪ অক্টোবর । আপডেট । ২০ঃ৩১। বিশেষ প্রতিবেদন

প্রধান বিচারপতির এমন  আচমকা ছুটি নিয়ে দেশে বিদেশে শুরু হয়েছে নানা গুঞ্জন। এরই মধ্যে আইনমন্ত্রী আচমকা সিজেকে নিয়ে ক্যানসারের তথ্য বিদ্যুতের মতো সন্দেহ অবিশ্বাস ছড়াতে থাকে। দীর্ঘ ছুটি থেকে ফিরে আবার ছুটি নিয়েই মূলত যুক্তিতে কারু কাছে গ্রহণযোগ্যতা পাচ্ছেনা। তারউপর ক্যানসারের রোগী বলায় সন্দেহের মাত্রা আরো বেড়ে যায়। মানুষ ভুল করলে ভুলের কোন না কোন ক্লু রেখে যায়। এক্ষেত্রে সরকারি পদক্ষেপ ভুলের উপর ভর করেই শুধু নয়, ভুলের পর ভুলে ভর্তি। তার উপর এটর্নি ও মন্ত্রীর বক্তব্যে আরো ভুলের মাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে।

 

ঢাকা সহ সর্বত্র এবং লন্ডন ও ইউরোপে একটাই গুঞ্জন, সিজেকে জোর জবরদস্তি করে চার থেকে ছয়জন পিস্তল ঠেকিয়ে দস্তখত নিয়েছেন। সত্য মিথ্যা যাই হউক, সরকারের এসব পদক্ষেপে সেই সব গুঞ্জনের ডালা পালা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

 

তবে এটা সত্য, সিজে ক্যানসার রোগী নন, ছুটিও চাননি- অন্তত সরকারি বক্তব্যে সেটা সুস্পষ্ট। তাহলে আসল ঘটনা কী ?

 

সিজে ছুটি চাইলে বিদেশ থেকে নির্দিষ্ট সময়ে কেন ফিরলেন ? ক্যানসার রোগ ধরা পড়লে কানাডায় কিংবা জাপানে সুযোগ থাকা সত্যেও কেন শারিরিক চেক আপ করালেননা ? তাছাড়া সিজের বিগত ২০ বছরের ডাক্তারি রেকর্ডে ক্যানসারের সামান্য উপসর্গের কথা নেই কেন ?

 

রোহিঙ্গা পরিস্থিতি যখন টাল মাটাল দেশ, তখন দেশের দুই নেত্রীই দেশের বাইরে।মিয়ানমারের সরকারের প্রতিনিধি যখন দেশে, তখনও সরকার প্রধান দেশের বাইরে। বিরোধী দলীয় নেত্রীও তাই। দুজনই কাকতালীয়ভাবে অসুস্থ্য। দুজনই কি জানতেন, ডাল পালা কোথা থেকে কোথায় যাচ্ছে ? মিলিয়ন ডলারের এই প্রশ্নের কোন উত্তরও নেই।

 

 

এদিকে, তড়িঘড়ি করেই গেজেট এবং ভারপ্রাপ্তকে দিয়ে কাজ শুরু, বাংলাদেশের বিচার এবং  শাসন  বিভাগের  ইতিহাসে ডিজিটালের যুগকেও হার মানিয়েছে- যা দেখে খোলা চোখেই নানা সন্দেহ এবং অবিশ্বাসের জন্ম দেয়। সন্দেহ, অবিশ্বাস দিয়ে দেশ শাসন করা গেলেও জনগনের মনে স্থায়ীত্ব লাভ করা যায়না।

 

ইতমধ্যেই এরই ধারাবাহিকতায়, বলা যায় পূর্ব পরিকল্পণা মোতাবেক,  ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্‌হাব মিঞা দায়িত্বভার গ্রহণ করেছেন। অবকাশ শেষে সুপ্রিম কোর্ট খোলার প্রথম দিনে গতকাল সকালে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে আপিল বিভাগের বিচার কার্যক্রম শুরু হয়। বেঞ্চের অন্য সদস্যরা ছিলেন- বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলী, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী ও বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার। সকাল ৯টা ৫ মিনিটে বিচার কার্যক্রম শুরু হয়ে চলে ১০টা পর্যন্ত। এ সময় আপিল বিভাগ বেশ কিছু মামলা নিষ্পত্তি করে। পরে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রীতি অনুযায়ী বিচারপতি ও আইনজীবীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

 

দুপুর ২টার পর সুপ্রিম কোর্টের জাজেস লাউঞ্জে বিচারপতিদের ফুলকোর্ট সভায় সভাপতিত্ব করেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি। সূত্রে জানা গেছে, এ সময় বিচার বিভাগের ভাবমূর্তি সমুন্নত রাখতে নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করার জন্য সুপ্রিম কোর্টের সকল বিচারপতির প্রতি আহ্বান জানান তিনি। তিনি সকল বিচারপতিকে সময়মতো আদালতে আসা এবং এজলাসে বসার আহ্বান জানান। পাশাপাশি বিভিন্ন মামলায় দেয়া রায় তাড়াতাড়ি লিখতেও বিচারপতিদের আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, রায় ফেলে রাখবেন না। ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বিচার বিভাগের ভাবমূর্তি ফিরিয়ে আনতে সকল বিচারপতিকে সচেষ্ট থাকার আহ্বান জানান। সভায় হাইকোর্ট বিভাগের বেঞ্চ পুনর্গঠন নিয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির সিদ্ধান্ত অপরাপর বিচারপতিদের জানিয়ে দেয়া হয়। বলা হয়, অবকাশকালীন ছুটি শুরুর আগে যে অবস্থায় ছিল সেভাবেই বেঞ্চ বসবে এবং বিচারকাজ পরিচালনা করবেন। পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে বেঞ্চ পুনর্গঠন করা হবে।

 

প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা এক মাসের ছুটিতে যাওয়ার পর সোমবার রাতে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ দেয়া আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্‌হাব মিঞাকে।

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







পাঠক

Flag Counter



Developed By : ICT SYLHET

Developer : Ashraful Islam

Developer Email : programmerashraful@gmail.com

Developer Phone : +8801737963893

Developer Skype : ashraful.islam625

error: Content is protected !!