আপডেট ৫ ঘন্টা আগে ঢাকা, ১৬ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং, ২রা পৌষ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২৭শে রবিউল-আউয়াল, ১৪৩৯ হিজরী

Breaking News
{"effect":"fade","fontstyle":"Bold","autoplay":"true","timer":4000}

প্রচ্ছদ জাতীয়

Share Button

কালি সাধক মমতা কবিরাজঃ ২০১ টাকায় সব সমস্যার সমাধান!

| ১৮:৪২, অক্টোবর ৭, ২০১৭

হাসান শাফিঈ | ৮ অক্টোবর ২০১৭, রবিবার

 

৬০ সিদ্ধেশ্বরী। টিনশেড বাড়ির ছোট্ট দু’টি কক্ষ। স্যাঁতসেঁতে। এটিই কালি সাধক মমতা কবিরাজের আস্তানা। স্বামী-স্ত্রীর মনের অমিল, ভালোবাসার মানুষকে পাইয়ে দেয়া তার কাছে নস্যি ব্যাপার। এমনই এক সমস্যা সমাধানের কথা বলে বুধবার ফোনে যোগাযোগ করা হয় তার সঙ্গে। বৃহস্পতিবার দুপুরে সাক্ষাৎ দেবেন তিনি। তবে ঠিকানা জানান না। কেবল বলেন, রাজধানীর আনারকলি মার্কেটে এসে ফোন দিন। আমার লোক আপনাকে খুঁজে নেবে। কথা অনুযায়ী বৃহস্পতিবার দুপুর পৌনে ২টায় ফোন দেয়া হয় কালি সাধক মমতা কবিরাজকে। ফোন ধরেন এক পুরুষ। তাকে জানানো হয়, আনারকলি মার্কেটের প্রধান গেটে অপেক্ষা করছি। অপরিচিত কণ্ঠস্বর দেন ৬০ সিদ্ধেশ্বরী টিনশেড বাসার ঠিকানা।

 

ঠিকানা খুঁজে বের করার একপর্যায়ে সরু গলির মুখ থেকে ত্রিশোর্ধ্ব এক যুবক নিয়ে যায় মমতার আস্তানায়। দেখা যায়, চেয়ারে উপবিষ্ট ৫০ ছুঁইছুঁই কৃষ্ণবর্ণের এক নারী। সিঁথিতে সিঁদুর, কপালে সিঁদুরের টিপ। হাতে শাঁখা, দুই আঙুলে পাথরের আংটি।
নিজেকে কালি সাধক মমতা কবিরাজ পরিচয় দিয়ে বলেন, আপনার সমস্যার কথা বলুন। তাকে বলা হয়, স্ত্রীর সঙ্গে মনোমালিন্য। এটা দূর করার কোনো তদবির আছে কি? তিনি জানান, অবশ্যই আছে। কেবল স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে অমিল নয়- মনের মানুষকে কাছে পাওয়া, শত্রু দমন, বিবাহ বন্ধন দূর করা, ব্যবসা বাণিজ্যে উন্নতি, বান জাদুটোনা থেকে মুক্তি, জমি জায়গা নিয়ে ঝামেলা দূর করার তদবিরও আমি দিই।

 

 

মমতা কবিরাজ বলেন, তদবির দেয়ার আগে নিয়মটা আগে জেনে নিন। আপনার কাজ হওয়ার আগে একটি টাকাও আমাকে দিতে হবে না। তবে কাজ হলে প্রতিশ্রুত অর্থ দিতে হবে। অবশ্য অনেকে কাজ হওয়ার পর টাকা দিতে চায় না। এক্ষেত্রে আমি এমন কাজ করি, কেউ আর পালিয়ে থাকতে পারে না- এখানে হাজির হয়ে টাকা দিয়ে যায়।

 

নিজের দৈব ক্ষমতা সম্পর্কে বলতে গিয়ে মমতা বলেন, এই জগতে এসে আমি আমার হাজবেন্ডকে নিজে বিয়ে করিয়েছি। কারণ, সাধনায় বসলে এমনও হয়- একনাগাড়ে ছয় মাস এক বছর আমি অপ্রকৃতস্থ থাকি। স্বামীর সঙ্গে সম্পর্ক আছে কিনা প্রশ্নে মমতা কবিরাজ বলেন, সম্পর্ক আছে। এক সপ্তাহ স্বামীর সঙ্গে থেকে বুধবার আমি ঢাকা এসেছি। সকাল থেকে রাত ৯টা-১০টা পর্যন্ত আস্তানায় রোগী দেখেন জানিয়ে মমতা বলেন, প্রতিদিন দু’থেকে তিনজন করে রোগী পাই। যারা উপকার পায় তারা ২ থেকে ৫ হাজার টাকার মধ্যে সম্মানী দেয়। এমনও হয় কেউ খুশি হয়ে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত অর্থ দেয়। আমার এখানে এলেই কাজ করা লাগবে- এমন কোনো কথা নেই। যারা আসেন তাদের বলি, আগে বুঝুন সব। তারপর আস্থা পেলে কালির ভোগের জন্য ২০১ টাকা দিন। হাজিরার ২০১ টাকা দিলে আমি সাধারণত কাজ শুরু করি। এক্ষেত্রে কোনো জোর নাই। কেউ আস্থা না পেলে তদবির না নিয়েই চলে যেতে পারে।

 

 

আমি তদবিরের অনেক জিনিস চট্টগ্রামের রিয়াজউদ্দীন মাকের্টের পিতম্বর সাহেবের কাছ থেকে আনি। যেমন, কাম সিঁদুর। এটা সব জায়গায় পাওয়া যায় না। এটা এমন একটা সিঁদুর যার এক রতির দাম লাখ টাকা। এই সিঁদঁর কোনো ছেলে তার কপালে লাগিয়ে কোনো মেয়ের মুখের দিকে এক পলক তাকিয়ে থাকলে ওই মেয়ের সাধ্য নাই- ওই ছেলের পেছনে না ঘোরার। তবে ওই সিঁদুরটা অরজিনাল হতে হবে। মমতা বলেন, আমি একটানা ১২ বছর ভারতে কাটিয়ে এসেছি। ওই ১২ বছর আমি আমার স্বামীর সঙ্গেও দেখা করতে পারি নাই। আমার বাবা জগদীশ হাওলাদার। তিনি অনেক বড় একজন সাধক। কেবল বাবা কেন, আমাদের বাড়ির একটা শিশুও যদি কাউকে একটু পানি পড়া দেয় তাহলে যেকোনো ব্যাধিতে কাজ হয়। এখন কাজের কথায় আসেন।

 

 

আপনি কি তদবির নিতে চাচ্ছেন? ‘হ্যাঁ’ সূচক মত জানালে মমতা কবিরাজ বলেন, আগে ২০১ টাকা দিন! ‘ভুল করে টাকা নিয়ে বের হইনি’ এমনটা জানালে তিনি কিছুক্ষণ সন্দেহের দৃষ্টিতে তাকান। খানিক ভেবে তিনি বলেন, আপনার সমস্যাটা আমি বিনা ফিসেই দেখবো! আপনার ডান হাতটা বাড়ান তো। হাত বাড়ালে মমতা কবিরাজ হাঁড়ের ত্রিকোণী দণ্ড নিয়ে টেবিলে তিনটি ছোট টোকা দেন। এরপর একটি বিশেষ ধরনের মালা গলায় পরে চোখ বুজে ধ্যানে থাকেন কিছুক্ষণ। তারপর হাতের পাতায় তিনটি টোকা দিয়ে প্রথমে একটি ফুল, পরে ফল এবং সবশেষে একটি মাছের নাম বলতে বলেন। জবাবে পদ্ম, আম ও ইলিশের নাম বললে চোখ খুলে মমতা বলেন, আপনি তো তদবির নিতে আসেন নাই। আপনার স্ত্রী অত্যন্ত ভালো একটা মেয়ে। আপনি এসেছেন এই আমাকে দেখতে, আমার কর্মকাণ্ড বিষয়ে খোঁজ নিতে, ঝগড়া করতে।

Comments are closed.







পাঠক

Flag Counter



Developed By : ICT SYLHET

Developer : Ashraful Islam

Developer Email : programmerashraful@gmail.com

Developer Phone : +8801737963893

Developer Skype : ashraful.islam625

error: Content is protected !!