আপডেট ১৭ min আগে ঢাকা, ১৮ই অক্টোবর, ২০১৭ ইং, ৩রা কার্তিক, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২৬শে মুহাররম, ১৪৩৯ হিজরী

Breaking News
{"effect":"fade","fontstyle":"Bold","autoplay":"true","timer":4000}

প্রচ্ছদ জাতীয়

Share Button

খেলা দেখা নিয়ে ঢাবিতে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ৫

| ২২:২২, এপ্রিল ৬, ২০১৭

শ্রীলঙ্কার সঙ্গে বাংলাদেশের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টির বিজয় উল্লাসে সবাই যখন আনন্দের জোয়ারে ভাসছে, ঠিক তখনই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) দফায় দফায় সংঘর্ষে জড়িয়েছে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপ।

বৃস্পতিবার দিবাগত রাতে ঢাবির স্যার এ এফ রহমান হলে এ ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে হলের সাধারণ সম্পাদক গ্রুপের পাঁচ কর্মী আহত হয়। ভাঙচুর করা হয় তিনটি কক্ষ। ছিনতাই হয় একটি ল্যাপটপ।

এদিকে সংঘর্ষ চলাকালে হল প্রাধ্যক্ষের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

সূত্র জানায়, হলের টিভি রুমে খেলা দেখার সময় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়।

এসময় উভয় গ্রুপের কর্মীরা মারমুখী হয়ে ওঠে। দেশীয় অস্ত্র নিয়ে শোডাউন শুরু করে। ভাঙচুর করা হয় হলের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান তুষারের নিয়ন্ত্রণে থাকা ৪২১, ৩০৪ ও ৩০৬ নং কক্ষ এবং টিভি রুম।

৪২১ নং কক্ষ থেকে ফয়সাল নামের এক শিক্ষার্থীর ল্যাপটপ ছিনতাই হয়। সংঘর্ষে নেতৃত্ব দেয় বাংলা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র রাজু আহমেদ, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের তৃতীয় বর্ষের রাশেদ রাজন (প্রশ্নফাঁসের অভিযোগে জেলে ছিল), ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের তৃতীয় বর্ষের সাজু ও রকিব হাসান, হলের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মনজুর আহমেদ রানা।

এদের সবাই হল ছাত্রলীগের সভাপতি হাফিজুর রহমানের অনুসারী। হাফিজ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগের অনুসারী ও তুষার কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইনের অনুসারী।

সংঘর্ষে আহত হয়েছেন- দর্শন বিভাগের তৃতীয় বর্ষের সাইফুল, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের রাজিব, সমাজ কল্যাণ বিভাগের চতুর্থ বর্ষের আপেল, একই বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের আফজাল এবং সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ২য় বর্ষের আফছার।

এদের মধ্যে সাইফুল গুরুতর আহত হয়েছেন। তার নাক ফেটে প্রচন্ড রক্তক্ষরণ হচ্ছিল। আহতদের শুরুতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয় এবং পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারে ভর্তি করা হয়।

এদিকে ঘটনার সময়ে হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. আফতাব উদ্দিন বিতর্কিত ভূমিকা পালন করেছেন বলে অভিযোগ সাধারণ শিক্ষার্থীদের। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ- সংঘর্ষ শুরুর অনেক পরে তিনি হলে প্রবেশ করেছেন।

হলে প্রবেশের পর তিনি সংঘর্ষস্থলে না গিয়ে নিজ কক্ষে ঢুকেছেন। ফলে সংঘর্ষ থামার পরিবর্তে আরও বিলম্বিত হয়েছে।

তবে ঘটনা শেষে সাংবাদিকরা হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. আফতাব উদ্দিনের কক্ষে গেলে তিনি বলেন, আমিতো হলে ছিলাম না। বাইরে কাজে ব্যস্ত ছিলাম। তোমরা যেভাবে এসে দেখছো, আমিও সেভাবে এসে দেখছি। এখানে মন্তব্য করার কিছু নেই।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অধ্যাপক ড. এম আমজাদ আলী যুগান্তরকে বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি। জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

হল ছাত্রলীগের সভাপতি হাফিজুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, ঘটনার সময় আমি হলের বাইরে ছিলাম। এসে ঘটনা শুনেছি। একজন আহত হয়েছে এবং একটি ল্যাপটপ চুরি হয়েছে বলে জেনেছি।

সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান তুষার বলেন, আমি প্রচন্ড অসুস্থতার কারণে চট্টগ্রামে অবস্থান করছি। এটি অত্যন্ত অনাকাঙ্খিত একটি ঘটনা। দ্রুততম সময়ের মধ্যে ঢাকায় এসে জড়িতদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

ঢাবি ছাত্রলীগের সভাপতি আবিদ আল হাসান বলেন, বিশৃঙ্খলাকারীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে। তাদের কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

Comments are closed.







পাঠক

Flag Counter



Developed By : ICT SYLHET

Developer : Ashraful Islam

Developer Email : programmerashraful@gmail.com

Developer Phone : +8801737963893

Developer Skype : ashraful.islam625

error: Content is protected !!