আপডেট ২ min আগে ঢাকা, ২২শে অক্টোবর, ২০১৮ ইং, ৭ই কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১১ই সফর, ১৪৪০ হিজরী

Breaking News
{"effect":"fade","fontstyle":"normal","autoplay":"true","timer":4000}

প্রচ্ছদ অর্থ-বণিজ্য

Share Button

কমনওয়েলথ ফরেন মিনিস্টারদের বিশেষ পলিসি বৈঠকে বাংলাদেশের ফরেন মিনিস্টার অনুপস্থিত

| ০১:০১, এপ্রিল ২১, ২০১৮

রয়টার্স । এপি । লন্ডন টাইমস নিউজ । লন্ডন রিপোর্টার্স ইউনিটি । ২১ এপ্রিল । ২০১৮

Image result for commonwealthsummitlondon2018

বরিস জনসন ৭৫জন ফরেন মিনিস্টার ও সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ প্রধানদের নিয়ে এক বিশেষ পলিসি ও সিভিল সোসাইটি বৈঠকের আয়োজন করেন। রূদ্ধদ্বার ৩ ঘন্টা ব্যাপী বৈঠকে বিভিন্ন কমনওয়েলথভুক্ত দেশ সমূহের সাথে ব্রিটেন এবং অন্যান্য দেশের অর্থনৈতিক, প্রযুক্তি, মানবাধিকার, গণতন্ত্র, সিভিল সোসাইটি, প্রশাসন জবাবদিহিতা সহযোগিতা বৃদ্ধির নানা দিক নিয়ে খোলামেলা আলোচনা ও মতবিনিময় অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। অত্যন্ত হাই প্রোফাইল এবং নীতি নির্ধারনী গুরুত্বপূর্ণ এই বৈঠকে কমনওয়েলথভুক্ত দেশ সমূহের সকল পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের নির্ধারিত নামের আসনে বসা থাকলেও বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নাম লেখা আসন অবাক করে দিয়ে খালি থাকতে দেখা যায় ।৫৩দেশের ফরেন মিনিস্টারদের কাছে বিষয়টি দৃষ্ঠিকঠু লাগলেও বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং প্রতিমন্ত্রী লন্ডনে অবস্থান করলেও উপস্থিত থেকে রোহিঙ্গা ইস্যুতে কমনওয়েলথের আন্তর্জাতিক কম্যুনিটিকে ঐক্যবদ্ধ করার প্রয়াসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রস্তাবিত ৫টি গুরুত্বপূর্ণ সুনির্দিষ্ট কৌশলের প্রয়োজনীয় ব্যাখ্যা এবং উপস্থাপনার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হলো। তবে শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের সেক্রেটারি উপস্থিত হয়েছিলেন কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর উত্থাপিত ৫টি কৌশল নিয়ে করনীয় ধাপ নিয়ে কোন বক্তব্যই সেক্রেটারি তুলে ধরেননি।

Image result for boris john son & theresa May

এদিকে পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের পর্যায়ে ব্যাপক গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের অকার্যকর ও নিষ্প্রভ ভুমিকা একই সাথে বর্তমান সেক্রেটারি কমনওয়েলথ থিম এবং জাতি সংঘ সংস্থাসমূহের মধ্যে সমন্বয়হীন এনজিও নির্ভর এক কর্তা-যা যুগের সাথে একেবারেই সামঞ্জস্যহীন এক কর্তা ব্যক্তি-যা কূটনীতিক মহলে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের নিয়ে প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে।

শুধু তাই নয়, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরেজা মে কর্তৃক আয়োজিত রুদ্ধদ্বার বৈঠকেও বাংলাদেশের ফরেন মিনিস্টার, প্রতিমন্ত্রী এমনকি সেক্রেটারিকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়নি-রোহিঙ্গা ইস্যু, কূটনীতিক দ্যুতিয়ালিতে কার্যক্রম পর্যালোচনা করেই এমন আচরন বলে পর্যবেক্ষক মহল মনে করছেন। শুধু তাই নয়, পরবর্তীতে বাংলাদেশ ডেলিগেটদের সাথে কথা বলেও টেরেজা মে র সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনের বিশেষ রূদ্দ্বদ্বার বৈঠক সম্পর্কেও কোন ধারণাই নেই বলে জানা গেছে।কমনওয়েলথে প্রধানমন্ত্রী যেভাবে রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে বক্তব্য তুলে ধরেছেন, সেভাবে তার ফলোআপ এর জন্য তার ফরোয়ার্ড টিমের কোন ধারণাই নেই জেনে কূটনীতিকরা অবাকই হননি, আশ্চর্যও হয়েছেন। কমনওয়েলথভূক্ত সরকার প্রধানরা যেখানে মনে করছেন, বাংলাদেশের জন্য এই রোহিঙ্গা ইস্যু বিশাল এক সমস্যা হয়ে দেখা দিবে অচিরেই, যা বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে একা সামাল দেয়া সম্ভব নয়, সেখানে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় কোন ফিজিবিলিটি স্টাডিও উপস্থিত করতে পারেনাই। রোহিঙ্গা ইস্যুতে ব্রিটেন এবং অন্যান্য দেশ যেভাবে ঢাকার পাশে দাড়িয়েছে, সেখানে ঢাকার সেগুণবাগিচার সাদা অফিস ঘুমের মধ্যেই রয়ে গেছে।

Image result for bangladesh foreign ministry

কমনওয়েলথে প্রধানমন্ত্রী উত্থাপিত ৫টি সুনির্দিষ্ট কর্মকৌশল ব্রিটেন সহ প্রায় সব দেশকে আলোড়িত করেছে, অথচ পররাষ্ট্রমন্ত্রী, সেক্রেটারি কারও কোন ধারনাই নেই এ বিষয়ে-কূটনীতিকদের বিষয়টি অবাক করেছে।

 

Comments are closed.







পাঠক

Flag Counter



Developed By : ICT SYLHET

Developer : Ashraful Islam

Developer Email : programmerashraful@gmail.com

Developer Phone : +8801737963893

Developer Skype : ashraful.islam625

error: Content is protected !!