আপডেট ৫ min আগে ঢাকা, ২৩শে জুলাই, ২০১৮ ইং, ৮ই শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৮ই জিলক্বদ, ১৪৩৯ হিজরী

Breaking News
{"effect":"fade","fontstyle":"normal","autoplay":"true","timer":4000}

প্রচ্ছদ জাতীয়

Share Button

লন্ডন নিউজ রাউন্ডঃওয়েস্ট মিনিস্টারের ক্ষমতায় টেরেজা মে কী টিকে যবেন?

| ১৩:৫৪, জুলাই ১০, ২০১৮

লন্ডন নিউজ রাউন্ড । ১০ জুলাই । ২০১৮।

ব্রেক্সিট নিয়ে কনজারভেটিভ পার্টি এবং টেরেজা মে কঠিণ চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন। একদিকে পার্টির ভেতরের হার্ড ব্রেক্সিটিয়ারদের তৎপরতা, অপরদিকে ১৯২২ কমিটিও সক্রিয়। এমনি অবস্থায় ব্রেক্সিট সেক্রেটারি, টেরেজার কেবিনেটের শক্রিশালি ব্রেক্সিট নেতা ডেভিড ডেভিস পদত্যাগ করেছেন। যদিও ডেভিড ডেভিস গতকাল টেরেজার কান্ট্রি হাউজের মিটিং এ সফট ব্রেক্সিট প্ল্যানে স্বাক্ষর করেছিলেন।ডেভিড ডেভিসের পথ অনুসরণ করেছেন টেরেজা মে আরো এক শক্তিশালি ব্রেক্সিটিয়ার ও ফরেন সেক্রেটারি বরিস জনসন।

Image result for committee 1922

কান্ট্রি হাউজের মিটিং এর পর ধারণা করা হয়েছিলো টেরেজা দলীয় ব্যাক বেঞ্চারদের বিদ্রোহ  আর কঠিণ ব্রেক্সিট পন্থীদের সামাল দিয়েছেন ভালোভাবেই।

কিন্তু পরিস্থিতি এখন ভিন্ন নাটকীয়তার দিকে মোড় নিয়েছে।

ডেভিড ডেভিসের পদত্যাগের পর কট্রর ব্রেক্সিট পন্থী বলে খ্যাত বরিস জনসনের পদত্যাগ সময়ের ব্যাপার মাত্র ছিলো।

ইইউ-ইউকে ফ্রি ট্রেড রিলেশনশিপ নিয়ে টেরেজার পরিকল্পনায় কট্রর ব্রেক্সিট পন্থীরা দারুণ আহত হলেও চেকার্স বৈঠকে স্বাক্ষর করা ছাড়া গত্যন্তর ছিলোনা।

This week West Minister Politics, Brexit & Theresa May:London news Round

ব্রেক্সিট, ওয়েস্টমিনিস্টারের রাজনীতি আর টেরেজা মে নিয়ে লন্ডন নিউজ রাউন্ডউপস্থাপনাঃ সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদরিসার্চঃরাইম সেলিমএডিটিংঃরাইয়ান সেলিমমার্কেটিংঃসাজমুন ও রাইসা প্রযোজনাঃকাজী আসাদুজ্জামান ও আখী সীমা কাওসার

Posted by London Times-Salim Ahmed on Monday, 9 July 2018

টেরেজা যেন ধীরে ধীরে মার্গারেট থ্যাচার হয়ে উঠছেন। পার্টির ভিতরে এবং বাইরে বিদ্রোহ আর কোন্দল একের পর এক মোকাবেলা করে থ্যচার ডাইনেস্টির মতো এই যায়, এই ঠিকে থাকে-এমনভাবে সরকার সামাল দিচ্ছেন।

পার্লামেন্টে বক্তব্যের সময়ে টেরেজা তার দুই সহযোগির চলে যাওয়াকে সম্মান জানিয়ে বলেন, গণভোটের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তারা ব্রেক্সিট যথাসময়ে ডেলিভারি দিতে বদ্ধ পরিকর।

এদিকে কমিটি ১৯২২ কে টেরেজা মে ব্রিফ করেছেন তার সফট ব্রেক্সিট পরিকল্পনা নিয়ে। প্রশ্ন হলো, কারা এই কমিটি ১৯২২ ? ফন্ট বেঞ্ছের এমপিদের না নিয়ে পেছনের বেঞ্চের এমপিদের সংগঠণ কমিটি ১৯২২ হলে তারা এতো ক্ষমতাশালী কেন?

জানা যায়, এই কমিটি ১৯২২ হলো কনজারভেটিভ দলের পেছনের বেঞ্চের এমপিদের সংগঠণ। যারা প্রতি সপ্তাহে পার্লামেন্ট চলাকালিন মিটিং এ মিলিত হয়ে থাকেন, এজেন্ডা, আইন ইত্যাদি নিয়ে আলোচনা করা থাকেন। কমিটি ১৯২২ মূলত কনজারভেটিভ ব্যাক বেঞ্চার এমপিদের প্রাইভেট সংগঠন। ২০১০ সাল থেকে তারা ফ্রন্ট বেঞ্চ এমপিদের ওপেন আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন তাদের মিটিং এ অবজারভার হিসেবে জয়েন করার জন্য। তবে এই কমিটি দলীয় লিডারশীপ, প্রাইম মিনিস্টারকে ক্ষমতা রাখা ও ফেলে দেয়ার ক্ষেত্রে ভোটাভুটি প্রস্তাব উত্থাপন, ভোট আয়োজন করে থাকে পার্লামেন্টে। এই কমিটির চেয়ার হলেন প্রবীণ কনজারভেটিভ নেতা অ্যাল্ট্রিঞ্চহাম – গ্রাহাম ব্রাডি এমপি।

এই কমিটির কাছে  ১৫ শতাংশ এমপি যদি লিখিতভাবে লিডারশিপ বা দলীয় নেতা পরিবর্তনের জন্য আবেদন করেন, তাহলে কমিটি ১৯২২ সেটা আমলে নেয়। বর্তমানে ৪৮ জন এমপি টেরেজার বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাবের ভোট প্রার্থনা করেছেন।

২০০৩ সালে এই কমিটি ১৯২২ র কাছে ২৫ এমপি লিখিত আবেদনের প্রেক্ষিতে তখনকার কনজারভেটিভ নেতা ইয়ান ডানকান স্মীথ দলীয় পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন।

তবে অনেক কনজারভেটিভ এবং সিনিয়র এমপি ও নেতারা স্পষ্ট করে বলেছেন, তারা এখনি বা এই মুহুর্তে দলীয় নেতা পরিবর্তন চাননা। কমিটি ১৯২২ চেয়ার গ্রাহাম ব্রাডিও তেমন একটা আমলে নেননি ৪৮ এমপির চিঠি, বরং বলেছেন, কমিটি ১৯২২ লিখিত আবেদনগুলো কমিটি অবজার করছে।

উল্লেখ্য এই কমিটি ১৯২২ মূলত ১৯২৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিলো।

Image result for committee 1922

তখনকার কনজারভেটিভ কোয়ালিশন লিবডেমের সাথে ভেঙ্গে নির্বাচনের আহবানের প্রেক্ষিতে প্রাইম মিনিস্টার জর্জ ডভিড লয়েড ভেঙ্গে দিয়ে নির্বাচনের আয়োজন করেছিলেন। টোরিরা সেই নির্বাচনে জয়ী হয়েছিলো।এর পর পরই কমিটি ১৯২২ তাদের প্রাথমিক ডাইনিং ক্লাবকে  রাতারাতি বর্ধিত করে ১৯২৬ সালে -যাতে সকল টোরি ব্যাক ব্যাঞ্চ এমপিরা এর মেম্বার হওয়ার সুযোগ লাভ করেন।

এখন বিদ্রোহী এবং কট্রর ব্রেক্সিট পন্থীরা মিলে এই কমিটি ১৯২২ প্রভাবিত করে টেরেজা মে কে ক্ষমতা থেকে বের করার পরিকল্পণা আটছেন। এনিয়ে পরিস্থিতি আরো উত্তপ্ত ও টালমাটাল হয়ে পড়ে যখন ডেভিড ডেভিস এবং বরিস জনসন পদত্যাগ করেন। কট্রর বা হার্ড ব্রেক্সিট পন্থী আরো অনেকেই এই লাইন ধরতে পারেন।

তবে কমিটি ১৯২২ এবং চেয়ারম্যান গ্রাহাম ব্রাডি ও সিনিয়র টোরি এমপিরা এখনো টেরেজার পেছনে একাট্রা । তারা এখনি নেতৃত্বের পালা বদল চাননা।

এদিকে স্কাই নিউজের এক জরিপে দেখা গেছে, কিছুদিন আগেও যেখানে জনমত টেরেজার পেছনে শক্তিশালী অবস্থানে ছিলো সেখানে আজকের টালমাটাল পরিস্থিতিতে জনমতো পালটে টেরেজার জনপ্রিয়তায় ধবস নেমেছে।

Brits have lost trust in May's ability to negotiate the best possible Brexit deal

কিন্তু টেরেজা মে এখন অনেক পোড় খাওয়া রাজনীতিবিদদের মতো অনেক শক্তিশালী এক প্রাইম মিনিস্টার। মার্গারেট থ্যাচারের মতো বেশ শক্ত ও কূশলীভাবে তিনি দলীয় কোন্দল ও বিদ্রোহীদের সামাল দিচ্ছেন। কমিটি ১৯২২ কে তিনি আহবান করেছেন, এখনি দলীয় নেতৃত্ব পরিবর্তন না করতে।

টেরেজা কমিটিকে জানিয়েছেন, এই মুহুর্তে দলীয় নেতা পরিবর্তন মানেই হলো জেরেমি করবিনের হাতে ওয়েস্ট মিনিস্টারের রাজনীতি ও ক্ষমতা সমর্পণ করা। তাছাড়া, ডেভিড ডেভিস ও বরিস জনসনের বিদায়ের পর টোরি দলে এখন আর টেরেজার বিকল্প কোন শক্তিশালি নেতাও নেই। দলকে আগে নেতা তৈরি করতে হবে-সে সুযোগ দলীয় ফোরাম ও দলীয় নেতাদের দেয়া প্রয়োজন। অর্থাৎ টেরেজা এখনো অনেক পজিটিভ অবস্থানে ও স্পেস পেয়ে যাচ্ছেন। মাইকেল গোভ এর জনপ্রিয়তা তেমন একটা এখন আর নেই। অ্যাম্বার রূড হতে পারতেন টেরেজার বিকল্প-কিন্তু তিনিও বিদায় নিয়েছেন আগেই।

 

সব মিলিয়ে ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ দল দলীয় নেতা নিয়ে বিদ্রোহ তুঙ্গে থাকলেও ক্ষমতার পালাবদল এই মুহুর্তে খুব একটা হওয়ার সম্ভাবনা সিনিয়র টোরি এমপিরা দেখছেন না, যেমন দেখছেন না, লন্ডনে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ৫০ বছরে শিক্ষকতা করছেন সামাজিক বিজ্ঞান, হেলথ ও সোশ্যাল কেয়ার সাইন্সের শিক্ষক মিঃ আলাবা। তার মতে, টেরেজা থ্যাচারের মতো ঠিকই টিকে যাবেন। নির্বাচন হলে টেরেজাই আবার ক্ষমতায়  আসবেন।

তবে রাজনৈতিক বিশ্লেষক আর পন্ডিতেরা যে যাই বলেন না কেন, ওয়েস্টমিস্টারের রাজনীতিতে ব্রেক্সিট এবং টেরেজা মে এক বিরাট আলোড়ন ও  শিহরণ জাগাবে বারে বার -সেটা অন্তত আগাম বলা যায়।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







পাঠক

Flag Counter



Developed By : ICT SYLHET

Developer : Ashraful Islam

Developer Email : programmerashraful@gmail.com

Developer Phone : +8801737963893

Developer Skype : ashraful.islam625

error: Content is protected !!