আপডেট ১৪ ঘন্টা আগে ঢাকা, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং, ১১ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১৫ই মুহাররম, ১৪৪০ হিজরী

Breaking News
{"effect":"fade","fontstyle":"normal","autoplay":"true","timer":4000}

প্রচ্ছদ সারাদেশ

Share Button

লাশ বাসা থেকে বের করার আগে বন্ধ করা হয় সিসি ক্যামেরা

| ১৯:২৩, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৮

রিপন আনসারী,মানিকগঞ্জ থেকে

 

মানিকগঞ্জ ও সাভারের এখন আলোচিত নাম সেলিম মন্ডল। তিনি ঢাকা জেলা পরিষদের সদস্য ও সাভার উপজেলা যুবলীগের বহিস্কৃত সভাপতি। নিজের দ্বিতীয় স্ত্রীকে হত্যা করে ব্যাপক আলোচনায় এসেছেন এই নেতা। ৫ সেপ্টম্বর ইতালি পালিয়ে যাওয়ার সময় হযরত শাহজালাল বিমানবন্দরের ইমেগ্রেশন পুলিশ তাকে আটক করে মানিকগঞ্জ জেলা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।
বুধবার মানিকগগঞ্জ সিনিয়ন জুডিশিয়াল আদালতের বিচারক নিভানা খায়ের জেসির কাছে ১৬৪টি ধারা জবানবন্দিতে নিজের দ্বিতীয় স্ত্রী আয়েশা আক্তার বকুল (২৫) হত্যার দোষ স্বীকার করেছেন। এর নিয়ে বিকালে মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম নিজ কার্যালয়ে প্রেসব্রিফিংয়ে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
সেলিম মন্ডলের স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে পুলিশ সুপার সাংবাদিকদের কাছে আয়েশা আক্তার বকুল হত্যার লোহর্ষক বর্ননা করেছেন।
পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম জানান, সাভারের ১৭/৪ মজিবপুরের একটি বাসায় আয়শা আক্তার ভাড়া থাকতেন। ২ আগষ্ট রাতে স্বামী সেলিম মন্ডল বাসায় প্রবেশ করে। এরপর পুর্বপরিকল্পিত ও ইচ্ছাকৃত তার স্ত্রী আয়েশা আক্তারের সঙ্গে ঝগড়ায় জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে স্ত্রীকে প্রচন্ড মারধর করে হত্যা নিশ্চিত করে। এরপর তার সহযোগীদের সহয়াতায় লাশ চাদর ও বিছানায় মুড়িয়ে ফেলে। রাতেই লাশ নিয়ে যাওয়ার জন্য নিজের ব্যবহৃত গাড়ি প্রস্তত করে রাখে। লাশ নিয়ে বের হওয়ার আগে বাড়ির যেখানে যেখানে সিসি ক্যামেরা আছে সেগুলো সব বন্ধ করে করে। এরপর দিবাগত রাতের কোন এক সময় লাশ নিয়ে চলে যায় মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার বায়রা ইউনিয়নের স্বরুপপুর এলাকায়। সেখানে পেট্রোল ঢেলে লাশের দেহে আগুন ধরিয়ে দেয়। এসময় তার সাথে আরও বেশ কয়েকজন ছিল।

এরপর ৩ আগস্ট সিংগাইর উপজেলার বায়রা গ্রাম থেকে আগুনে ৯০ শতাংশ ঝলসানো একটি তরুণীর লাশ উদ্ধার করে সিংগাইর থানা পুলিশ। পুলিশ অজ্ঞাত পরিচয় হিসেবে মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠায়। ময়নাতদন্ত শেষে আঞ্জুমান মুফিদুল ইসলামের মাধ্যমে লাশটি মানিকগঞ্জ পৌরসভা কবরস্থানে দাফন করা হয়। সিংগাইর থানা পুলিশ অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।
পরে মরদেহের ছবি দেখে আত্বীয়স্বজন আয়েশা আক্তার বকুলের বলে শনাক্ত করেন। আয়শার বড় ভাই উজ্জল হোসেন এ ঘটনার সেলিম ম-লকে প্রধান আসামি করে সিংগাইর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় প্রধান অভিযুক্ত সেলিম ম-ল বেশ কিছুদিন পালিয়ে থেকে গত ২৮ আগস্ট উচ্চ আদালতে জামিনের আবেদন করে। শুনানি শেষে আদালত তাকে অস্থায়ী জামিন দেন। অস্থায়ী জামিনে থাকা অবস্থায় সেলিম মন্ডল গত ৫ সেপ্টেম্বর রাতে দেশ থেকে পালিয়ে ইতালি যাওয়ার সময় হযরত শাহজালাল বিমানবন্দরের ইমেগ্রেশন পুলিশ তাকে আটক করে। পরে সিংগাইর থানা পুলিশের কাছে আটক সেলিম ম-লকে হস্তান্তর করা হয়। গত ৬ সেস্টেম্বর আদালতে সেলিম মন্ডলকে হাজির করে তিনদিনের রিমান্ডে নেয় সিংগাইর পুলিশ। পর বর্তিতে পুলিশের আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত আরও পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্চুর করে। তবে রিমান্ড শেষ হওয়ার আগেই বুধবার সেলিম মন্ডল আদালতে স্বীকারোক্তি মুলক জবানবন্দি দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







পাঠক

Flag Counter



Developed By : ICT SYLHET

Developer : Ashraful Islam

Developer Email : programmerashraful@gmail.com

Developer Phone : +8801737963893

Developer Skype : ashraful.islam625

error: Content is protected !!