আপডেট ৪ ঘন্টা আগে ঢাকা, ১৮ই মার্চ, ২০১৯ ইং, ৪ঠা চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১০ই রজব, ১৪৪০ হিজরী

Breaking News
{"effect":"fade","fontstyle":"normal","autoplay":"true","timer":4000}

প্রচ্ছদ আজকাল

Share Button

পাইকগাছায় কপোতাক্ষের ভাঙ্গনে বিলিন হয়েছে বিশাল অংশ : ভাঙ্গনরোধে কোন ব্যবস্থা নেই

| ২২:১১, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৮

এস,এম, আলাউদ্দিন সোহাগ, পাইকগাছা (খুলনা)

 

 

খুলনার পাইকগাছায় কপোতাক্ষ নদের অব্যাহত ভাঙ্গনে কয়েকটি গ্রামের বিশাল অংশ বিলিন হয়েছে। ভাঙ্গন রোধ সহ নদের পূর্ব স্থানে খননের দাবীতে মন্ত্রনালয়ের গণ স্বাক্ষরিত আবেদন করা হলেও কোন ব্যবস্থা না নেওয়ায় দিশেহারা হয়ে পড়েছে এলাকাবাসী।
জানা গেছে, জেলার পাইকগাছা উপজেলার হরিঢালী ও কপিলমুনি ইউনিয়নের দরগামহল, রামনাথপুর, হাবিবনগর, ভেদামারী, ও আগড়ঘাটা বাজারের সিংহভাগ কপোতাক্ষের নদের অব্যাহত ভাঙ্গনে নিচিহ্ন হয়েছে। ভাঙ্গন অব্যাহত থাকায় নদের দুরবর্তী হাবিবনগর সিনিয়র মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওঃ সাইফুল্লাহর পাকা বসত বাড়ীর বিশাল অংশ নদের গর্ভে চলে গেছে। বিলিন হয়েছে শ’শ’ বসতি, স্কুল, ঐতিহাসিক দরগামহল জামে মসজিদ, পীর মিয়াউদ্দীনের মাজার, স্কুল করবস্থান। শ’শ’ পরিবার ভিটে ও ফসলী জমি হারিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। ৩৬ হাজার বিদ্যুতের খুঁটিগুলো রয়েছে ঝুকির মধ্যে। ৮০’র দশকে এ ভাঙ্গন দেখা দেয়। যা আজও অব্যহত রয়েছে। কয়েকবার পরিবর্তন করা হয়েছে প্রধান সড়কের স্থান। আবারে দেখা দিয়েছে সড়ক পরিবর্তনের সম্ভাবনা। ক্ষতিগ্রস্থরা সম্পদ-সম্পত্তি হারিয়ে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ এলাকায় আসলে এক নজরে দৃশ্যটি দেখানোর জন্য হুমড়ি খেয়ে পড়ে তাদের কাছে। অনেকেই ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিলেও কেউই আজ পর্যন্ত ব্যবস্থা নেয়নি বলে ক্ষতিগ্রস্থরা জানান। পূর্বপাড়ে ভাঙ্গনের জমি জেগে উঠেছে পশ্চিম পাড়ে। যার নাম হয়েছে পার রামনাথপুর। জেগে উঠা সম্পত্তিতে প্রভাবশালীরা গড়েছে বসত বাড়ী, কেউ বা করছে চিংড়ি ঘের। স্থানীয় ভূক্তভোগীদের জোর দাবী, সাবেক এস এ খতিয়ানের পূর্বের স্থানেই নদী খনন ও ভাঙ্গনরোধে দ্রুত নেয়ার জন্য কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। কপিলমুনি ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ কওছার আলী জোয়ার্দার বলেন, দ্রুত ভাঙ্গনরোধের ব্যবস্থা না নেয়া হলে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হবে এলাকাবাসী। খুলনা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ, স্থানীয় সংসদ সদস্য এ্যাডঃ শেখ মোঃ নুরুল হক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (সাবেক) ফকরুল হাসান ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সহ দায়িত্বশীল ব্যক্তিরা ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেছেন।

Comments are closed.







পাঠক

Flag Counter



Developed By : ICT SYLHET

Developer : Ashraful Islam

Developer Email : programmerashraful@gmail.com

Developer Phone : +8801737963893

Developer Skype : ashraful.islam625

error: Content is protected !!