আপডেট ২ ঘন্টা আগে ঢাকা, ১৭ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং, ৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৭ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪০ হিজরী

Breaking News
{"effect":"fade","fontstyle":"normal","autoplay":"true","timer":4000}

প্রচ্ছদ জাতীয়

Share Button

খাসোগিকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে: সৌদি আরব

| ১৩:৫০, অক্টোবর ২৬, ২০১৮
অনলাইন ডেস্ক ২৬ অক্টোবর ২০১৮-সৌদি সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে স্বীকার করেছে সৌদি আরব। গতকাল বৃহস্পতিবার সৌদি সরকারি কৌঁসুলি এক বিবৃতিতে জানান, তুরস্ক থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে এ ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া গেছে। আজ শুক্রবার এএফপির খবরে এ কথা জানানো হয়।খাসোগি নিখোঁজ হওয়ার ১৭ দিন পর প্রথমবারের মতো এক বিবৃতিতে তারা তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেট ভবনের ভেতরেই খাসোগির মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে। তবে ব্যাখ্যা দেওয়া হয়েছিল, কনস্যুলেট ভবনে কয়েকজন সৌদি নাগরিকের সঙ্গে ‘হাতাহাতির’ ঘটনায় মারা যান খাসোগি। ওই বিবৃতি নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে ‘হাতাহাতির সময় মৃত্যু’ থেকে সরে আসে তারা। বিবৃতিতে বলা হয়, খাসোগিকে হত্যা করা হয়েছে, তবে তা পূর্বপরিকল্পিত নয়। এ ব্যাখ্যাও ধোপে টেকেনি। এখন সৌদি কর্তৃপক্ষ বলছে যে খাসোগিকে ভেবেচিন্তেই খুন করা হয়েছে।

২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেট ভবনে প্রবেশের পর থেকে নিখোঁজ ছিলেন খাসোগি। শুরু থেকেই তুরস্ক দাবি করে আসছিল, রিয়াদ থেকে ইস্তাম্বুলে আসা ১৫ জন সৌদি চর কনস্যুলেট ভবনের ভেতরে খাসোগিকে হত্যা করেছে। সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের নির্দেশে তাঁকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। গত বছরের জুনে যুবরাজ মোহাম্মদ ক্ষমতা নেওয়ার পর দেশ ছেড়ে স্বেচ্ছায় নির্বাসনে যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান খাসোগি। ‘ওয়াশিংটন পোস্ট’–এ কলাম লিখতেন। সেখানে তিনি সৌদি সরকারের বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করেছিলেন।

যুবরাজ মোহাম্মদের ঘনিষ্ঠজন বলে পরিচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও বিশ্বনেতাদের চাপের মুখে সৌদি প্রতিবেদনের সমালোচনা করেছিলেন। খাসোগি হত্যার ব্যাপারে সৌদি প্রতিবেদনকে তিনি ‘ইতিহাসের জঘন্যতম ধামাচাপা’ দেওয়ার চেষ্টা বলে মন্তব্য করেছিলেন।

মঙ্গলবার সৌদি রাজপ্রাসাদে খাসোগির ছেলে সালাহকে ডেকে এনে সান্ত্বনা দেন যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। ছবি: এএফপিমঙ্গলবার সৌদি রাজপ্রাসাদে খাসোগির ছেলে সালাহকে ডেকে এনে সান্ত্বনা দেন যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। ছবি: এএফপি

এই সংকটের মুখে সৌদি আরব কিছু একটা করার চেষ্টা করছে। অধিকার সংগঠনগুলো জানিয়েছে, খাসোগির বড় ছেলে সালাহ ও তাঁর পরিবারের দেশ ছেড়ে যাওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে।

তবে এরপরও সৌদি এ নিয়ে চাপের মুখে রয়েছে। খাসোগি হত্যার বিষয়ে বিশ্বনেতারা নানা সন্দেহ প্রকাশ করে এর জবাব চেয়েছেন এবং খাসোগির মরদেহ কোথায় তা জানতে চেয়েছেন।

রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থায় প্রকাশিত বিবৃতিতে সৌদির প্রধান আইন কর্মকর্তা শেখ সৌদ আল-মজেব বলেছেন, তুরস্ক থেকে পাওয়া প্রমাণের ভিত্তিতে তাঁরা ঘটনাটি পর্যালোচনা করেছেন। তুরস্ক কর্তৃপক্ষের তথ্য থেকে আভাস পাওয়া যায় যে খাসোগির ঘটনায় সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের কর্মকাণ্ড পূর্বপরিকল্পিত ছিল। তিনি জানান, ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে এ ঘটনায় তদন্ত অব্যাহত থাকবে।

খাসোগি সৌদি রাষ্ট্রের ‘বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের’ শিকার বলে গতকাল মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘের বিশেষজ্ঞ আগনেস ক্যালামার্ড। তিনি এ ঘটনার আন্তর্জাতিক তদন্তের আহ্বান জানিয়েছেন।

সৌদি আরবের নতুন স্বীকারোক্তির পর তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসগ্লু বলেছেন, রিয়াদকে এখন বাকি প্রশ্নের জবাব দিতে হবে—কে খাসোগিকে হত্যার নির্দেশ দিয়েছিলেন এবং তাঁর মরদেহ কোথায় রাখা হয়েছে? তুরস্কের আঙ্কারায় এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘মরদেহ কোথায়? আপনারা স্বীকার করেছেন, তারা হত্যা করেছে, কিন্ত তারা কেন বলছে না যে মরদেহ কোথায়? তাঁর প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানাতে পরিবারও জানতে চায় তাঁর মরদেহ কোথায় আছে।’
জামাল খাসোগি হত্যার ঘটনায় সৌদি বিনিয়োগ সম্মেলন থেকে প্রভাবশালী দেশসহ বেশ কয়েকটি বড় প্রতিষ্ঠান ও মিডিয়া গ্রুপ নাম প্রত্যাহার করে নেয়।

বুধবার রিয়াদে অনুষ্ঠিত বিনিয়োগ সম্মেলনে প্রবেশ করছেন যুবরাজ মোহাম্মদ। ছবি: এএফপিবুধবার রিয়াদে অনুষ্ঠিত বিনিয়োগ সম্মেলনে প্রবেশ করছেন যুবরাজ মোহাম্মদ। ছবি: এএফপি

তবে সৌদির জ্বালানিমন্ত্রী খালিদ আল-ফালিহ দাবি করেছেন, যেসব বিদেশি প্রতিষ্ঠান সম্মেলন বর্জন করেছিল তারা এখন ‘দুঃখ’ প্রকাশ করছে এবং স্বাভাবিক সম্পর্ক পুনরুদ্ধার করতে চাইছে। রাষ্ট্রীয় নিউজ চ্যানেল আল-এখবারিয়াকে তিনি বলেছেন, দেশের বাইরে ন্যক্কারজনক অপপ্রচারের পরিপ্রেক্ষিতে রাজনৈতিক চাপে কিছু প্রতিষ্ঠান সম্মেলনে যোগ দেওয়া থেকে বিরত থাকে। যা কার্যত ব্যর্থ হয়েছে। সম্মেলন বর্জন করা সব প্রতিষ্ঠান গত ৪৮ ঘণ্টা ধরে ফোন করে দুঃখ প্রকাশ করছে।

সিমেন্সের প্রধান নির্বাহী জো কায়েসের, জেপি মর্গানের করপোরেট প্রধানেরা, ফোর্ড ও উবার এবং সিএএন, ‘দ্য ফিন্যান্সিয়াল টাইমস’–এর মতো প্রভাবশালী মিডিয়া সম্মেলন থেকে নাম প্রত্যাহার করে নেয়। ব্রিটেন, ফ্রান্স ও যুক্তরাষ্ট্রের মন্ত্রীরাও সম্মেলনে যোগ দেওয়া থেকে বিরত থাকেন।

খাসোগি হত্যার ঘটনায় যাঁর দিকে অভিযোগের তির ছুটেছে, সেই যুবরাজ মোহাম্মদ বুধবার এ হত্যার ঘটনায় ‘নিন্দা’ প্রকাশ করেন এবং ‘ন্যায়বিচার নিশ্চিত’ করার প্রতিশ্রুতি দেন। মঙ্গলবার তিনি খাসোগির ছেলে সালাহকে সান্ত্বনা দেওয়ার জন্য রাজপ্রাসাদে ডেকে নেন। ওই সময় তোলা এক ছবিতে দেখা গেছে, যুবরাজ ও সালাহ হ্যান্ডশেক করছেন, শীতল দৃষ্টিতে তাঁরা তাকিয়ে আছেন। ছবিটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়।

খাসোগি হত্যাকাণ্ডের টাইমলাইনঅক্টোবর ২
সৌদি সাংবাদিক জামাল খাসোগি তাঁর বিয়ের জন্য নথিপত্র নিতে ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে যান

সৌদি বাদশাহ সালমান ও যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের একজন কট্টর সমালোচক খাসোগি

অক্টোবর ৪
সৌদি আরব বলে, কনস্যুলেট ভবন ত্যাগ করার পর খাসোগি নিখোঁজ হয়েছেন

সৌদি রাষ্ট্রদূতকে তলব তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের

অক্টোবর ৫
সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান বলেন, কনস্যুলেটে খাসোগি নেই এবং সেখানে যেতে ও তল্লাশির জন্য তুরস্কের সরকারকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত তাঁরা

অক্টোবর ৬, ৭
খাসোগিকে কনস্যুলেটের ভেতর হত্যার ধারণা তুরস্কের পুলিশের

কনস্যুলেটে অভিযান চালানোর জন্য তুরস্ক অনুমতি চায়, তল্লাশির খবর পাওয়া যায়নি

অক্টোবর ১১
সৌদি আরব জানায়, ২ অক্টোবর কনস্যুলেটের ক্যামেরা কাজ করছিল না

কোনো তল্লাশির খবর পাওয়া যায়নি

অক্টোবর ১২
খাসোগির নিখোঁজ হওয়ার ঘটনা নিয়ে কথা বলতে তুরস্কে পৌঁছায় সৌদি প্রতিনিধি

অক্টোবর ১৩
সৌদি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দাবি, খাসোগিকে হত্যার আদেশ ‘ভিত্তিহীন অভিযোগ’

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, ২ অক্টোবর একদল সৌদি নাগরিককে নিয়ে ইস্তাম্বুলে বিমানবন্দরে নামে একটি উড়োজাহাজ

অক্টোবর ১৫
তুরস্কের ফরেনসিক কর্মকর্তাদের কনস্যুলেটে প্রবেশ

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প খাসোগির নিখোঁজের বিষয়ে আলোচনা করতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওকে সৌদি আরবে পাঠান

অক্টোবর ১৬, ১৭
রিয়াদে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে সাক্ষাৎ যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর, তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসগলুর সঙ্গে বৈঠক করতে আঙ্কারায় রওনা

অক্টোবর ১৮
যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, নেদারল্যান্ডসের জ্যেষ্ঠ মন্ত্রীরা ও যুক্তরাষ্ট্রের অর্থমন্ত্রী স্টিভেন মুচিন সৌদি আরবে আন্তর্জাতিক বিনিয়োগ সম্মেলন বর্জন করেন

অক্টোবর ২০
সৌদি আরব স্বীকার করে, কনস্যুলেটের মধ্যে খাসোগি নিহত হয়েছেন

হাতাহাতির ঘটনায় তাঁর মৃত্যু হয় বলে দাবি, ট্রাম্প তাৎক্ষণিকভাবে ব্যাখ্যা সমর্থন করেন

অক্টোবর ২১
সৌদি আরবের বিরুদ্ধে মিথ্যাচারের অভিযোগ আনেন ট্রাম্প

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ানের খাসোগির মৃত্যুর ঘটনার ‘নগ্নসত্য’ বের করার প্রতিশ্রুতি

অক্টোবর ২৩
তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান বলেন, খাসোগি হত্যাকাণ্ড পূর্বপরিকল্পিত

মরদেহের সন্ধান এবং হত্যার নির্দেশদাতাকে খুঁজে বের করার আহ্বান জানান
এএফপি

Comments are closed.







পাঠক

Flag Counter



Developed By : ICT SYLHET

Developer : Ashraful Islam

Developer Email : programmerashraful@gmail.com

Developer Phone : +8801737963893

Developer Skype : ashraful.islam625

error: Content is protected !!