আপডেট ১৩ ঘন্টা আগে ঢাকা, ১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং, ২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৫ই রবিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী

Breaking News
{"effect":"fade","fontstyle":"normal","autoplay":"true","timer":4000}

প্রচ্ছদ ইমিগ্রেশন

Share Button

আয়ারল্যান্ড হতে যাচ্ছে ইউরোপ ও ব্রিটেনের ফ্রি মুভম্যান্টের গেটওয়ে(ভিডিও)

| ০০:১০, নভেম্বর ১৭, ২০১৮

চ্যানেল এইট নিউজ । ১৭ নভেম্বর । ২০১৮ ।

 

২০১৯ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে ব্রেক্সিট হয়ে যাবে। অন্ততঃ প্রাইম মিনিস্টার টেরিজা মে এবং তার কেবিনেট আর ব্রেক্সিটপন্থীদের ডিটারমিনেশন সেকথাই বলে। যদিও ব্রেক্সিট ইস্যুতে ওয়েস্টমিনিস্টারের রাজনীতিতে চলছে নানা উত্তাপ আর বিতর্ক। অনেক মন্ত্রী, সেক্রেটারি ইতোমধ্যেই অসন্তুষ্ঠি প্রকাশ করে পদত্যাগ করেছেন।

 

ব্রেক্সিট হউক আর যাই হউক, ব্রিটিশ এবং ইউরোপিয় সাধারণ নাগরিকদের প্রধান চাহিদা হলো ফ্রি  মুভম্যান্ট, যা ব্রেক্সিটের ফলে ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার সম্ভাবনা অধিক।

EU citizens could travel to major cities such as Dublin or Belfast and take a flight or ferry over to the UK without the usual passport checks

তবে আশার কথা হলো, ইইউরোপিয় ইউনিয়ন এবং টেরিজা মে এই ইস্যুতে ঐক্যমত্যে পৌছেছেন  এবং ব্রেক্সিট চুক্তির ড্রাফটে সিটিএর আইন ১৯২২ সালের প্রণীত আইনকে প্রাধান্য দিয়ে বলা হয়েছে, ব্রেক্সিটের পরে আইরিশ বর্ডার উম্মুক্ত থাকছে, ব্রিটেন এবং ইউরোপিয় নাগরিকদের জন্য উম্মুক্ত চলাচলের সুযোগ অব্যাহত থাকছে।

 

ব্রিটিশ হোম অফিস আগেই জানিয়েছিলো, আইরিশ বর্ডার এবং ইউকে বর্ডার  উচ্চ ক্ষমতায় সহযোগিতার ক্ষেত্রে এবং বর্ডার সিকিউরিটিতে উচ্চতর মর্যাদায় সহযোগিতা হবে।

 

সেক্ষেত্রে ডিইউপির আপত্তি থাকলেও  কেবিনেটে এমন ক্লজ রেখেই প্রস্তাবিত ব্রেক্সিট চুক্তির জন্য সমর্থন দেয়া হয়েছে, যা নিয়ে গত দুইদিন ওয়েস্টমিনিস্টারের রাজনীতি ছিলো চরম নাটকীয়তা ও উত্তেজনায় ভরপুর। আর তার রেশ এখনো চলছে। কনজারভেটিভ এমপিদের ২২ জন এমপি ইতোমধ্যেই কমিটি ১৯২২ কাছে টেরিজা মের প্রতি তাদের অনাস্থার চিঠি দিয়েছেন। পার্লামেন্টে আস্থা ভোটের জন্য ৪৮ এমপির সমর্থন প্রয়োজন।

এদিকে এলবিসি রেডিও এবং গণমাধ্যমের সাথে আলোচনায় টেরিজা মে পার্লামেন্টে আস্থা ভোটের চেয়ে বরং ব্রেক্সিট ডেলিভারি দেয়ার জন্য তিনি মনোনিবেশ করছেন বলে জানিয়েছেন।

 

আস্থা ভোটের জন্য ২১ এমপি চাইলেও এখনো অনেক সিনিয়র কনজারভেটিভ এই মুহুর্তে দলীয় নেতৃত্বের পরিবর্তন চাননা বলে জানা গেছে। সাবেক হোম সেক্রেটারি অ্যাম্বার রোড মন্ত্রীসভায় ফিরে এসে বলেছেন, এই মুহুর্তে নেতা পরিবর্তন নয়, বরং ব্রেক্সিট এর অসমাপ্ত কাজ সম্পন্ন করাটাই চ্যালেঞ্জ এবং দল, কেবিনেট সকলেরই  ব্রেক্সিট ডেলিভারিতে মনোনিবেশ করা উচিত।

Comments are closed.







পাঠক

Flag Counter



Developed By : ICT SYLHET

Developer : Ashraful Islam

Developer Email : programmerashraful@gmail.com

Developer Phone : +8801737963893

Developer Skype : ashraful.islam625

error: Content is protected !!