আপডেট ১৫ ঘন্টা আগে ঢাকা, ১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং, ২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৫ই রবিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী

Breaking News
{"effect":"fade","fontstyle":"normal","autoplay":"true","timer":4000}

প্রচ্ছদ ধর্ম

Share Button

ইজতেমা ময়দান রণক্ষেত্র, একজনের মৃত্যু,সংঘর্ষে হেফাজত জড়িত নয়’

| ১৫:২০, ডিসেম্বর ১, ২০১৮

মারুফ কিবরিয়া ও এম এ হায়দার সরকার- ইজতেমা ময়দান | ১ ডিসেম্বর ২০১৮, শনিবার,

বিশ্ব ইজতেমায় আধিপত্য নিয়ে সংঘর্ষে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। ছবি: প্রথম আলো

 

টঙ্গিতে বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে তাবলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে দেড় শতাধিক আহত হয়েছে। হামলা সংঘর্ষে মুন্সিগঞ্জের ইসমাইল মন্ডল (৭০) মারা গেছেন বলে এক পক্ষ দাবি করেছে। তবে তার লাশ কোথায় আছে এ বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। সকাল থেকে ইজতেমা ময়দান দখলে নিতে মাওলানা সাদপন্থিরা ইজতেমা ময়দানের আশপাশে অবস্থান নেয়। তারা এক পর্যায়ে মাওলানা জুবায়েরপন্থিদের ওপর হামলা করে। হামলার সময় ইজতেমার স্থায়ী প্যান্ডেলে অনেকে ঘুমিয়ে ছিলেন। সংঘর্ষ শুরু হলে থেমে থেকে তা দুপুর পর্যন্ত চলে। লাঠিসোটা নিয়ে সাদপন্থিরা হামলা করলে জুবায়ের পন্থিরা ইটসুরকি দিয়ে ঢিল ছুড়ে তাদের প্রতিহত করার চেষ্টা করে।

হামলা সংঘর্ষের ঘটনায় বিমানবন্দর এলাকায় অবস্থান নিয়ে মাদ্রাসা শিক্ষক ও ছাত্ররা যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। এতে সড়কের একপাশে যান চলাচল বন্ধ থাকায় সকাল থেকে তীব্র যানজট দেখা দিয়েছে পুরো এলাকায়। সংঘর্ষে অন্তত দেড় শতাধিক আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে শতাধিক মুসল্লিকে ভর্তি করা হয়েছে টঙ্গি হাসপাতালে। বাকিদের ঢাকা মেডিকেলসহ বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। দুপুরের পর আইন শৃঙ্খলা বাহিনী মাঠে প্রবেশ করে দুই পক্ষকেই মাঠ থেকে সরিয়ে দিতে শুরু করে। ঢাকা মহানগর পুলিশের ট্রাফিক উত্তরা বিভাগের উপ-কমিশনার প্রবীর কুমার দাশ জানান, আজ ভোর থেকেই আশকোনা এলাকায় মারমুখী অবস্থান নেয় তাবলিগ জামায়াতের দুই গ্রুপ। উত্তরার আবদুল্লাহ পুরে অবস্থান নিয়েছে আরেক পক্ষ। সংঘর্ষের পর ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় সড়ক স্থবির হয়ে পড়েছে। তারা সড়কে অবস্থান নেয়ায় যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

 

‘তাবলিগের সংঘর্ষে হেফাজত জড়িত নয়’

গাজীপুরের টঙ্গীতে ইজতেমাকে কেন্দ্র করে তাবলিগ জামাতের দুগ্রুপের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনায় একজন নিহত ও পাঁচ শতাধিক মুসল্লি আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সেখানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন করেছে সরকার।

এ বিষয়ে গাজীপুর মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক একেএম কাওসার চৌধুরী গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, সংঘর্ষের মধ্যে ইসমাইল মণ্ডল (৭০) নামে মুন্সীগঞ্জ থেকে আসা এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। তার মাথায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

শনিবার সকালে টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে ৫ দিনের জোড় ইজতেমা অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে মাওলানা সা’দ আহমাদ কান্ধলভী ও মাওলানা যোবায়ের আহমেদপন্থীরা রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বিবদমান তাবলিগ জামাতের দুপক্ষ নিয়ে বৈঠকে বসেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। শনিবার বিকালে সচিবালয়ে এ বৈঠক শুরু হয়।

কয়েক মাস আগে তাবলিগ জামাতের কেন্দ্রীয় নেতা ভারতীয় মোহাম্মদ সাদ কান্ধলভীর কিছু বক্তব্য দিয়ে নিজেদের মধ্যে বিভেদ ছড়িয়ে পড়ে।

সাদ কান্ধলভী বলেছিলেন, ‘ধর্মীয় শিক্ষা বা ধর্মীয় প্রচারণা অর্থের বিনিময়ে করা উচিত নয়।’ কান্ধলভীর ওই বক্তব্যের মধ্যে মিলাদ বা ওয়াজ মাহফিলের মতো কর্মকাণ্ড পড়ে বলে মনে করা হয়।

এছাড়াও সাদ কান্ধলভী বলেছিলেন, মাদ্রাসাগুলোর শিক্ষকদের মাদ্রাসার ভেতরে নামাজ না পড়ে মসজিদে এসে নামাজ পড়া উচিত- যাতে মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়ে।

কান্ধলভীর এসব বক্তব্যের সঙ্গে একমত নন তাবলিগের অনেক শীর্ষ নেতা ও তাদের অনুসারীরা। তাদের দাবি সাদ কান্ধলভী যা বলছে, তা তাবলিগ জামাতের প্রতিষ্ঠাতা নেতাদের নির্দেশিত পন্থার বিরোধী। কান্ধলভীর কথাবার্তা আহলে সুন্নাত ওয়া’ল জামাতের বিশ্বাস ও আকিদার বাইরে।

গত জুলাই মাসে মাসে হেফাজতে ইসলামের আমির শাহ আহমদ শফীর উপস্থিতিতে তাবলিগ জামাতের একটি অংশ সংবাদ সম্মেলন করে। সেখানে সাদ কান্ধলভীকে বাংলাদেশে নিষিদ্ধ করা ছাড়াও তার বিরুদ্ধে কিছু সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

তবে শনিবার টঙ্গীতে যে সংঘর্ষ হয়েছে তার সঙ্গে হেফাজতের কোনো লোক জড়িত নয় বলে জানিয়েছেন সংগঠনটির যুগ্ম মহাসচিব মুফতি মো. ফয়জুল্লাহ গণমাধ্যমকে বলেন, এখানে হেফাজত বা অন্য কোনো রাজনৈতিক দলের কোনো সম্পৃক্ততা নেই।

 

ইজতেমার মাঠ প্রশাসনের দখলে থাকবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আগামী এক মাস টঙ্গী বিশ্ব ইজতেমা মাঠ প্রশাসনের দখলে থাকবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

শনিবার বিকালে সচিবালয়ে বিবদমান তাবলিগ জামাতের দুই পক্ষ নিয়ে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

মন্ত্রী বলেন, দু’পক্ষের সংঘাতের কারণে আগামী এক মাস টঙ্গী বিশ্ব ইজতেমা মাঠ প্রশাসনের দখলে থাকবে। এই এক মাসের মধ্যে তাবলিগ জামাতের দুপক্ষ সেখানে কোনো ধরনের কর্মকাণ্ড করতে পারবে না।

এ ছাড়া আজকের সংঘর্ষের ঘটনায় ফৌজদারি মামলা হবে। তদন্তসাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

এর আগে সকালে তাবলিগ জামাতের দুপক্ষের সংঘাতের পর তাদের নিয়ে বৈঠকে বসেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তাবলীগ জামাতের মুরব্বীরা। ছবি: সংগৃহীত

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তাবলীগ জামাতের মুরব্বীরা। ছবি: সংগৃহীত

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন দিল্লি মারকাজের মাওলানা মোহাম্মদ সাদ কান্ধলভীপন্থী বাংলাদেশে তাবলিগের শুরা সদস্য সৈয়দ ওয়াসিফুল ইসলাম এবং কওমিপন্থী মাওলানা যোবায়েরের পক্ষ থেকে তাবলিগের উপদেষ্টা মাওলানা আশরাফ আলী ও আবদুল কুদ্দুসসহ অন্যান্য নেতারা।

এ ছাড়া পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়াসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, দুপক্ষের বিবাদের কারণে পূর্বঘোষিত জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিতব্য বিশ্ব ইজতেমা পেছানোর সিদ্ধান্ত হয়। এর মধ্যেই শনিবার সকালে টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে ৫ দিনের জোড় ইজতেমা অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে মাওলানা সা’দ আহমাদ কান্ধলভী ও মাওলানা যোবায়ের আহমেদপন্থীরা রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

মুসল্লিরা জানান, গত ৩০ নভেম্বর শুক্রবার থেকে ৪ ডিসেম্বর মঙ্গলবার পর্যন্ত মাওলানা সা’দপন্থী মুসল্লিরা ৫ দিনব্যাপী জোড় ইজতেমার ঘোষণা দিলে মাওলানা যোবায়েরপন্থীরা এর বিরোধিতা করেন এবং জোড় ইজতেমা প্রতিহতের ঘোষণা দেন। এর আগেই মাওলানা যোবায়ের আহমেদপন্থীরা ময়দানের অবস্থান নেন।

শনিবার সকালে মাওলানা সা’দপন্থীরা ইজতেমা ময়দানে গেলে ময়দানের প্রতিটি গেটে তালাবদ্ধ দেখতে পেয়ে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন। একপর্যায়ে সা’দপন্থীরা ময়দানের গেট ভেঙে ঢোকার চেষ্টা করলে উভয়পক্ষের মুসল্লিদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। একপর্যায়ে তারা গেট ভেঙে ময়দানে প্রবেশ করে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন।

সংঘর্ষে মাওলানা সা’দপন্থী মুন্সিগঞ্জের মিলকীপাড়া গ্রামের ইসমাইল মণ্ডল (৭০) নামে এক মুসল্লির মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। দফায় দফায় এ সংঘর্ষে ৫ শতাধিক আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.







পাঠক

Flag Counter



Developed By : ICT SYLHET

Developer : Ashraful Islam

Developer Email : programmerashraful@gmail.com

Developer Phone : +8801737963893

Developer Skype : ashraful.islam625

error: Content is protected !!