আপডেট ৬ ঘন্টা আগে ঢাকা, ২০শে জুলাই, ২০১৯ ইং, ৫ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৬ই জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

Breaking News
{"effect":"fade","fontstyle":"normal","autoplay":"true","timer":4000}

প্রচ্ছদ গণমাধ্যম

Share Button

ব্রেক্সিটঃটেরেজা মে কি জুনেই বিদায় নিচ্ছেন, শেষ রক্ষায় চ্যান্সেলরের ২০ বিলিয়ন পাউন্ডের ঘুষ প্যাকেজ অফার

| ১৫:৪৫, মার্চ ১০, ২০১৯

চ্যানেল এইট। মূল রিপোর্ট । টাইমস । আইটিভি ।বিশ্লেষণ সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ, লন্ডন । ব্রেক্সিট কাউন্ট ডাউন এখন ভাগ্য নির্ণয়ের পর্যায়ে এসে দাড়িয়েছে। মোটা দাগের মিলিয়ন ডলারের প্রশ্ন এখন ঘুর পাক খাচ্ছে, ব্রেক্সিট চুক্তিকে কেন্দ্র করে শেষ পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে কী সরকার থেকে বিদায় নিবেন? চতুর্দিকে এখন একটাই গুঞ্জন, ব্রেক্সিট চুক্তি এবং টেরেজা মে`র বিদায় ঘন্টা। অবশ্য এই উইক এন্ডেও টেরেজা মে এবং চ্যান্সেলর ফিলিপ হ্যামন্ড টেরেজার চুক্তি যাতে পার্লামেন্টে এমপিরা সমর্থন করেন এবং তাকে অপমানজনক অবস্থা থেকে রক্ষা করেন, সেজন্য কোন রকম রাখ-ঢাক ছাড়াই ঘোষণা করেছেন, যদি পার্লামেন্টে এমপিরা টেরেজার ডিল সমর্থন করেন, তাহলে তাদের ২০ বিলিয়ন পাউন্ড উন্নয়ন সাহায্য দেয়া হবে। উন্নয়ন সাহায্যের নামে এটা যে এক ধরনের ঘুষ-সেটা আর বলার অপেক্ষা রাখেনা।পরিস্থিতি কতো নাজুক পর্যায়ে পৌছলে চ্যান্সেলরকে প্রকাশ্যে এমপিদের এমন প্যাকেজের ঘোষণার আশ্বাস দিতে হয়, সেটা সহজেই অনুমেয়।

 

জানা গেছে, চ্যান্সেলর ফিলিপ হ্যামন্ড বলেছেন, তিনি তার আসন্ন স্প্রিং স্ট্যাটম্যান্টে  এমপিদের স্কুল, পুলিশ, এমনকি ট্যাক্স কাটের রিভিউ করে ২০বিলিয়ন পাউন্ড বরাদ্ধ দিবেন, যদি এমপিরা পার্লামেন্টে টেরেজা মে`র চুক্তিকে সমর্থন করেন।

 

এদিকে টেরিজা মে`র টিমের উপর ব্রেক্সিটিয়ারদের প্রচন্ড চাপ অব্যাহত আছে, যাতে মে আগামী জুনের মধ্যেই পদত্যাগ করেন অথবা সরকার থেকে বিদায় নেন। সানডে টাইমস কেবিনেট সোর্স উল্লেখ করে এমন রিপোর্ট করেছে।

 

সানডে টাইমসের কাছে একজন সিনিয়র কেবিনেট মন্ত্রী জানিয়েছেন, পরিস্থিতি কোনভাবে সমর্থন করেনা, টেরেজা মে জুন পর্যন্ত থাকবেন। তার মতে টেরেজা মে তার ক্ষমতার সড়কের একেবারে শেষ প্রান্তে এসে দাড়িয়েছেন-যাকে জুনের মধ্যেই বিদায় নিতে হতে পারে।

 

সানডে টাইমস সিনিয়র সরকারি কর্মকর্তাদের সাথে আলাপের সূত্রে যে সামারি দাড় করিয়েছে, সেগুলো হলো-

০১) টেরেজার মের টিম মেকে পার্লামেন্টে ব্রেক্সিট চুক্তিকে সমর্থনের বিনিময়ে তাকে ক্ষমতা থেকে পদত্যাগের পরামর্শ দিতে পারে

০২), সিনিয়র কেবিনেট কলিগ টাইমসকে জানিয়েছেন, তারা ভাবছেন, টেরেজা মে`র সাথে সাক্ষাত করে এ সপ্তাহেই তাকে চলে যাওয়ার কথা বলার প্রস্তুতি নিয়ে আলোচনা করছেন।

০৩) সরকারের মন্ত্রী পর্যায়ের একজন সহযোগি সানডে টাইমসের সাথে শেয়ার করেছেন, লেবার দলের আরেকটি নো কনফিডেন্স মোশন টেবিলে থাকায়, টোরিরা দ্বিতীয় এই নো কনফিডেন্স  মোশনে তাকে সরিয়ে দিতে ভোটে  সমর্থন দিতে পারেন

০৪) নেতৃত্বের প্রতিযোগিতায় চার ব্রেক্সিটিয়ার বরিস জনসন, জেরেমি হান্ট, সাজিদ জাভিদ, ডোমিনিক র‍্যাব- চার নীলমণি চান বিদায় এখনি দিতে, যাতে সামনে এগিয়ে যাওয়ার পথ সহজ হয়।

 

এদিকে জানাগেছে, আজ সন্ধ্যায় প্রাইম মিনিস্টার র‍্যাফ নিয়ে ফ্লাই করবেন ব্রাসেলসে, পূণরায় আলোচনার মাধ্যমে তার চুক্তি এদিক সেদিকের মাধ্যমে নিশ্চিতের জন্য, যাতে পার্লামেন্টে চুক্তি প্রত্যাখ্যান না করে।

 

এতো কিছুর পরেও টেরেজা মে টিম এখন পর্যন্ত শংকায় মঙ্গলবারের মিনিংফুল ভোটে টেরেজার চুক্তি ফের ২৩০ ভোটের ব্যবধানে পরাজয় করতে পারে।  অবশ্য আশাবাদিরা এখনো ১৫০ মেজরিটির ব্যবধানে পার্লামেন্টে টেরেজার চুক্তি পাশের স্বপ্ন দেখছেন অথবা ছক আকছেন। তারপরেও শংকা কাটছেনা, বরং সংকট ঘনীভুত হচ্ছে ক্রমেই।

 

সবশেষে, প্রো-ব্রেক্সিট  ইউরোপিয়ান রিসার্চ গ্রুপের ডেপুটি চেয়ার স্টিভ বেকার,  ডিইউপির ডেপুটি লিডার নাইজেল ডডস অনেকটাই নিশ্চিত টেরেজা মে`রব্রেক্সিট চুক্তিতে যদি পরিবর্তন না আসে, তবে যে সাইজেরই হউক না কেন,মঙ্গলবারে মে`র চুক্তি পার্লামেন্টে পরাভুত হবে।

 

অপরদিকে গতকাল প্রাইম মিনিস্টার মে সিনিয়র টোরি ব্রেক্সিটিয়ারদের চেকার্সে আমন্ত্রণ  জানিয়ে পূণরায় কনভিন্স করতে সেই চেষ্টাও ব্যর্থ হয়েছে বলে জানা গেছে।

 

অন্যদিকে ক্রস পার্টি ব্রেক্সিট গ্রুপ নিক বলসের নেতৃত্বে তিনজন খ্যাতিমান কিউসিকে হায়ার করেছেন, যাতে নতুন ব্রেক্সিট চুক্তির রাজনৈতিক ডিক্লারেশন ড্রাফট পরিকল্পণার জন্য। এই কমিটির মতে, মঙ্গলবারে টেরেজার চুক্তি পার্লামেন্ট প্রত্যাখ্যান করলে তারা চাইছেন, বাধ্য করবেন, নরওয়ে স্টাইলে ইইউ এর সাথে ইউকের সম্পর্ক স্থাপনের জন্য পলিটিক্যাল ডিক্লারেশন এডপ্ট করতে।

 

টিম আরো চাইছে, ভোটাভুটিতে পার্লামেন্টে কোন চুক্তিছাড়া ব্রেক্সিট ব্লক করে দিতে যাতে ২১শে মার্চের ইইউ সামিটের আগেই ব্রেক্সিট ডেডলাইন এক্সটেনশনে মে`কে বাধ্য করে।

 

এমনি চতুর্মুখী পরিকল্পণার মরণ কামডের খেলায় একেবারে শেষ মুহুর্তে এসে চ্যান্সেলর ফিলিপ হ্যামন্ড এমপিদেরকে টেরেজা মে`র চুক্তিকে পার্লামেন্টে সমর্থনের বিনিময়ে স্পেন্ডিং কাট রিভিউ এর নামে তার সিরিয়াস ফান্ডিং সহযোগিতা তথা ঘুষ প্যাকেজের অফার টেবিলে রেখে দিয়েছেন।

 

এখন দেখার বিষয়, ক্ষমতাসীন টোরি এমপি, টোরি ও লেবার দলের ব্রেক্সিটিয়ার এমপি, ব্রেক্সিট বিরোধী গ্রুপ, ব্রেক্সিটিয়ার রিসার্চ গ্রুপ, কিংবা ক্ষমতাসীনদের পার্টনার ডিইউপির এই চতুর্মুখী ভিতর বাইরের খেলায় টেরেজা মে শেষ পর্যন্ত কি চমক দেখান, অথবা ব্রেক্সিট চুক্তি  শেষ পর্যন্ত কোথায় গিয়ে ঠেকে, মঙ্গলবারের মিনিংফুল ভোটের মধ্য দিয়ে সেই সিনারিও অনেকটাই পরিষ্কার হয়ে যাবে।

 

 

Comments are closed.







পাঠক

Flag Counter



Developed By : ICT SYLHET

Developer : Ashraful Islam

Developer Email : programmerashraful@gmail.com

Developer Phone : +8801737963893

Developer Skype : ashraful.islam625

error: Content is protected !!