আপডেট ১২ ঘন্টা আগে ঢাকা, ২৫শে আগস্ট, ২০১৯ ইং, ১০ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২২শে জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী

Breaking News
{"effect":"fade","fontstyle":"normal","autoplay":"true","timer":4000}

প্রচ্ছদ গণমাধ্যম

Share Button

সন্তান টিকা নেওয়ার পর মায়ের বুকের দুধ নীল

| ১৪:৪৩, মে ১২, ২০১৯

মিরর -শিশুকন্যা ন্যান্সিকে টিকা দিতে নিয়ে যান মা জোডি ফিশার। এক বছর বয়সী মেয়েটিকে টিকা দেওয়ার পর বুকের দুধে কিছু পরিবর্তন লক্ষ্য করেন তিনি। চার সন্তানের জননী জোডি ফিশার জানান, টিকা দেওয়ার আগের দিনও তাঁর বুকের দুধ স্বাভাবিক ছিল। কিন্তু টিকা দেওয়ার দুই দিনপর তাঁর বুকের দুধ নীল রং ধারণ করে।

আগের মতো টিকা দেওয়ার পরদিনও জোডি তাঁর বুকের দুধ একটি বোতলে ভরেন। দেখলেন, তা নীল আভা ধারণ করেছে, যা দেখতে অনেকটা হাঁসের ডিমের রঙের মতো।

https://www.mirror.co.uk/lifestyle/family/mums-magic-blue-breast-milk-15019729#ICID=OffSiteVideo

বিষয়টি দেখেই জোডি অবাক হন। একইসঙ্গে এ ঘটনায় তিনি উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন। পরে কিছু গবেষণা থেকে তিনি বুঝতে পারেন যে এতে উদ্বেগের কোনো কারণ নেই।

ফেসবুকে আবিষ্কারের বিষয়টি ব্যাখ্যা করেন জোডি,  ‘আমার শরীরের সমস্ত অ্যান্টিবডিই মূলত এই নীল রং উৎপাদন করছে। কারণ টিকা দেওয়ার আগে  ন্যান্সি অসুস্থ হয়ে পড়ে। টিকা নেওয়ার পর যখন তাকে বুকের দুধ খাওয়ানো হয়, তার মুখের লালা নির্দিষ্ট অ্যান্টিবডিসহ আরো বেশি দুধ উৎপাদন করতে আমার শরীরে সংকেত পাঠায়।’

ভিডিওটি শেয়ার করার উদ্দেশ্য হলো ওই মা দেখাতে চেয়েছেন, কোনো দুধের শিশু অসুস্থ হলে মায়েদের শরীরে কী প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়।

পোস্টটি প্রচুর ফেসবুক ব্যবহারকারীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে। তাদের অধিকাংশই বিষয়টিকে ‘মায়েদের জাদু’ বলে মন্তব্য করেন।

কেউ কেউ প্রশ্ন করেন তাঁর দুধের রং অন্য কোনো রং না হয়ে নীল কেন হলো।

জবাবে জোডি বলেন, ‘আমার বুকের দুধের এই রং কোন খাবারের সঙ্গে গ্রহণ করা রং থেকে হয়নি। কেননা, আমি এই সময় কোনো কৃত্রিম রং গ্রহণ করিনি এমনকি সবুজ শাকসবজিও খাইনি। এটি মূলত আমার শিশুকন্যার অসুস্থতার কারণে হয়েছে। কারণ সে যখন সুস্থ ছিল তখন এমনটি হয়নি।

জোডি নিজেই বলেছিলেন, ‘বিষয়টি তুলে ধরছে, এই  টিকা ঠিক তাই করছে, যা করতে চেয়েছে। এটিই দেখা গেছে আমার মেয়ে ও আমার শরীরে।

তিনি বলেন, এই টিকার মূল বিষয় হচ্ছে, রোগ কিংবা ভাইরাসটির সবচেয়ে দুর্বল ভার্সনের সঙ্গে পরিচিত করানো। এর মাধ্যমে আপনার শরীর এটাই মনে করছে, আপনি এরইমধ্যে রোগ বা ভাইরাসটি ধ্বংস করে ফেলেছেন। এ কারণে ভবিষ্যতে এই রোগ বা ভাইরাসের মারাত্মক বাস্তব কোনো সংস্করণ আর আসবে না।

Comments are closed.







পাঠক

Flag Counter



Developed By : ICT SYLHET

Developer : Ashraful Islam

Developer Email : programmerashraful@gmail.com

Developer Phone : +8801737963893

Developer Skype : ashraful.islam625

error: Content is protected !!