আপডেট ৩ ঘন্টা আগে ঢাকা, ২২শে আগস্ট, ২০১৯ ইং, ৭ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২০শে জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী

Breaking News
{"effect":"fade","fontstyle":"normal","autoplay":"true","timer":4000}

প্রচ্ছদ খেলা স্লাইড

Share Button

সাবেক স্পিকার আয়াছ মিয়ার ইস!আমাদের ঝুলিতে যদি আর ২০টা রান থাকতো!

| ২২:৫৮, জুন ৫, ২০১৯

ফেসবুক কর্ণার। লন্ডন টাইমস স্পোর্টস ডেস্ক। মিড অন থেকে মুশফিকের কাছে দারুণ থ্রো করেছিলেন তামিম। কিন্তু বলটি স্টাম্পে আঘাত হানার আগেই মুশফিকের হাতে লেগে পড়ে যায় বেল। নিশ্চিত আউটের হাত থেকে বেঁচে যান কেন উইলিয়ামসন। বাংলাদেশের ম্যাচ হেরে যাওয়ার পর এটাকে ‘আসল’ টার্নিং পয়েন্ট বললে ভুল হবে না।

ওভালে মুশফিকের ওই ভুলের খেসারত দিতে হয়েছে পুরো দলকে। যদিও শেষ দিকে দুর্দান্ত দুটি ক্যাচ নিয়ে শাপমোচন করার চেষ্টাই যেন করলেন এই উইকেটরক্ষক। ৭ রানে জীবন পাওয়া উইলিয়ামসন থামেন ৪০ রানে।  যাতে ম্যাচের দৃশ্যপটও যায় পাল্টে। তাই বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে পঞ্চমবারের মুখোমুখিতেও হার এড়াতে পারেনি মাশরাফিরা। বুক চিতিয়ে লড়াই করলেও হারতে হয়েছে ২ উইকেটে।

 

খেলা শেষ হওয়ার সাথে সাথেই টাওয়ার হ্যামলেটস বারার সাবেক স্পিকার আয়াছ মিয়া(Mohammed Ayas Miah) ফেসবুকে এমনি এক আক্ষেপকরে পোষ্ট দেন। লিখেন ইস!আর যদি ২০রান করতে পারতাম!এমন আক্ষেপ শুধু আয়াছ মিয়ার না, লন্ডনের বাংলাদেশি সহ সারা দেশের ক্রিকেটপ্রেমিদের।

 

হারের পর মাশরাফি নিজেও সংবাদ সম্মেলনে বলে গেছেন, ‘আমরা যদি আরও ২০-২৫ কিংবা ৩০ রান করতে পারতাম, তাহলে ম্যাচ ভিন্ন হতে পারতো।’ তবু ২৪৪ রানের স্কোরের পর উত্তেজনাকর লড়াইয়ের জন্য বাংলাদেশের বোলাররা নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবিদার।

ওভালে বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ডের ম্যাচটি সম্পূর্ণ নতুন উইকেটে হয়েছে। একেবারে ‘ফ্রেশ’ হওয়ার কারণে পেস বোলারাদের সহায়তা ছিল চোখে পড়ার মতো। আকাশে মেঘ দেখে টস জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানাতে বিন্দুমাত্র দেরি করেননি নিজিল্যান্ড অধিনায়ক উইলিয়ামসন।

টস জেতার ফায়দা বেশ ভালো করেই নিয়েছে কিউইরা। নিউজিল্যান্ডের গতি ও বাউন্সের কাছে হার মেনে তামিম-সৌম্য দলীয় ৬০ রানের মধ্যে বিদায় নেন। এরপর সাকিব ও মুশফিক মিলে রানের চাকা সচল রাখলেও ভুল বোঝাবুঝিতে সব নষ্ট, রান আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন মুশফিক।

কিউই চার পেসার ম্যাট হেনরি, ট্রেন্ট বোল্ট, লকি ফার্গুসন ও কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের কঠিন পরীক্ষা নিয়েছেন। তাদের গতি ও বাউন্সের কাছে প্রতিনিয়ত নতি স্বীকার করতে বাধ্য হয়েছে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। শেষ দিকে সাইফউদ্দিনের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে শেষ রক্ষা হয় বাংলাদেশের। ২৪৪ রানের সংগ্রহটা সাদামাটা হলেও যেভাবে লড়াই করেছে, এটাই বাংলাদেশকে আত্মবিশ্বাস জোগাবে।

সাকিব কিউই দুই ওপেনারকে দ্রুত ফিরিয়ে বাংলাদেশকে ম্যাচে ফেরান। তবে তৃতীয় উইকেটে বাধা হয়ে দাঁড়ায় টেলর-উইলিয়ামসন জুটি। মনে হচ্ছিল ম্যাচটি বুঝি বাংলাদেশ ৮ উইকেটেই হেরে যাবে। জুটিতে ১০৫ রান যোগ করে উইলিয়ামসন সাজঘরে ফিরলে ফের ম্যাচে ফেরে বাংলাদেশ। বিশেষ করে, সাইফউদ্দিনের বলে গ্র্যান্ডহোম ফিরে গেলে জমে যায় ম্যাচ। পরের ওভারে মোসাদ্দেক ফেরান জিমি নিশামকে। দারুণ সম্ভাবনা তৈরি হলেও শেষ পর্যন্ত পারেনি বাংলাদেশ। আগের চার বিশ্বকাপের মতো এবারের বিশ্বকাপেও নিউজিল্যান্ডকে হারানোর স্বপ্ন স্বপ্নই রয়ে গেল।

তিন স্পিনার- সাকিব, মিরাজ ও মোসাদ্দেক দলকে ভালো সাপোর্ট দিলেও সাইফউদ্দিনকে সঙ্গ দেওয়ার মতো কোনও পেসার ছিলেন না। তাই আগামী ৮ জুন কার্ডিফে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে বোলিং আক্রমণ নিয়ে নতুন করে ভাবতে হবে বাংলাদেশকে।

Comments are closed.







পাঠক

Flag Counter



Developed By : ICT SYLHET

Developer : Ashraful Islam

Developer Email : programmerashraful@gmail.com

Developer Phone : +8801737963893

Developer Skype : ashraful.islam625

error: Content is protected !!