আপডেট ১ ঘন্টা আগে ঢাকা, ১৭ই জুলাই, ২০১৯ ইং, ২রা শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১২ই জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

Breaking News
{"effect":"fade","fontstyle":"normal","autoplay":"true","timer":4000}

প্রচ্ছদ গণমাধ্যম

Share Button

মাশরাফিকে নিয়ে স্ট্যাটাস-চমেকের চিকিৎসককে রাঙ্গামাটি বদলি

| ২২:৪৬, জুন ২৮, ২০১৯

জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক ও সরকার দলীয় এমপি মাশরাফি বিন মর্তুজার বিরুদ্ধে ফেসবুকে অসম্মানজনক স্ট্যাটাস দেয়ায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. একেএম রেজাউল করিমকে রাঙ্গামাটি মেডিকেল কলেজে বদলি করা হয়েছে। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এই আদেশ জারি করে। মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য-শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের পার-১ অধিশাখার উপ-সচিব মোহাম্মদ মোহসীন উদ্দিন বুধবার বদলির আদেশে স্বাক্ষর করেন। যা অবিলম্বে কার্যকর করার কথা উল্লেখ রয়েছে।

আদেশের আগে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয় ডা. একেএম রেজাউল করিমকে। নোটিশে বলা হয়, ফেসবুক টাইমলাইনে সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা সমপর্কে অশালীন এবং অযাচিত ভাষা ব্যবহার করে পাবলিক পোস্ট দেয়া হয়েছে।

একজন সরকারি কর্মকর্তা হিসেবে এ আচরণ অনুচিত ও অনভিপ্রেত। যা সরকারি কর্মচারী আচরণ বিধিমালার পরিপন্থি। সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা, ২০১৮ এর ৩ (খ) মোতাবেক অসদাচরণ হিসেবে গণ্য।

তিন কর্মদিবসের মধ্যে ওই নোটিশের উত্তর দিতেও বলা হয়। ধারণা করা হচ্ছে সেই নোটিশের জবাবের পরিপ্রেক্ষিতেই বদলির এই সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হলো। গত ২৮শে এপ্রিল চিকিৎসক ডা. একেএম রেজাউল করিম তার ফেসবুক পোস্টে মাশরাফি বিন মোর্ত্তজার একটি হাসপাতাল পরিদর্শন ও কিছু বক্তব্য নিয়ে অসম্মানজনক পোস্ট দেন। পোস্টে ডা. একেএম রেজাউল করিম লেখেন, বাংলাদেশের ডাক্তারদের বোল্ট (বোল্ড) করতেই বড়ই আনন্দ। ম্যাশ চিকিৎসার জন্য অনেকবার ডাক্তারদের ছুরি কাঁচির নিচে গেছেন। তাদের অনেক তোয়াজ করতে হইছে। সেই ডাক্তারের বশংবদ পাইছি এবার। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তা নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠলে ডা. একেএম রেজাউল করিম তার নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ডিঅ্যাক্টিভ করে দেন। এ সময় ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তর থেকে ব্যবস্থা নেয়ার নিশ্চয়তা দেয়া হয়। মন্ত্রণালয় চিকিৎসকের ওই ফেসবুক স্ট্যাটাসকে অনুচিত, অনভিপ্রেত ও অসদাচরণ হিসেবেও উল্লেখ করে।

তারই ধারাবাহিকতায় গত ৬ই মে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ থেকে অধ্যাপক ডা. একেএম রেজাউল করিমের বিরুদ্ধে কেনো ব্যবস্থা নেয়া হবে না তার কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়। নোটিশের পর পরবর্তী ব্যবস্থা হিসেবে ডা. একেএম রেজাউল করিমকে বদলি করা হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

একই দিন ২৮শে এপ্রিল চট্টগ্রাম বিএমএ শাখার সাধারণ সমপাদক ডা. ফয়সাল ইকবাল মাশরাফির হাসপাতাল তদারকি চ্যালেঞ্জ করে চিকিৎসকদের কর্মবিরতির হুমকি দিয়ে স্ট্যাটাস দেন ফেসবুকে। পরে ব্যাপক সমালোচনার মুখে তিনিও সেটা মুছে দিতে বাধ্য হন। যদিও ততক্ষণে অনেকে ওই স্ট্যাটাসের স্ক্রিনশট পোস্ট করে ফয়সাল ইকবালের কড়া সমালোচনায় মেতে ওঠেন।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক ও নড়াইল-২ আসনের এমপি গত ২৫শে এপ্রিল বিকেলে আকস্মিক নড়াইল সদর হাসপাতাল পরিদর্শনে যান। এ সময় হাজিরা খাতায় তিন চিকিৎসকের স্বাক্ষর না দেখে হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আব্দুস শাকুর এবং পরে অনুপস্থিত সার্জারি বিশেষজ্ঞ ডা. আকরাম হোসেনের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা বলেন।

কথা বলার একপর্যায়ে সার্জারি বিভাগের সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. আকরাম হোসেনকে উদ্দেশ্য করে মাশরাফি মোবাইল ফোনে তাকে বলেন, ফাইজালামি পাইছেন? এখন বলেন আমি আপনারে কী করবো?

Comments are closed.







পাঠক

Flag Counter



Developed By : ICT SYLHET

Developer : Ashraful Islam

Developer Email : programmerashraful@gmail.com

Developer Phone : +8801737963893

Developer Skype : ashraful.islam625

error: Content is protected !!