আপডেট ৪৭ min আগে ঢাকা, ১৭ই জুলাই, ২০১৯ ইং, ২রা শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১২ই জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

Breaking News
{"effect":"fade","fontstyle":"normal","autoplay":"true","timer":4000}

প্রচ্ছদ খেলা স্লাইড

Share Button

মাশরাফি নেই কেন? গুঞ্জন লর্ডসে

| ০০:৫৯, জুলাই ৫, ২০১৯

আরিফুর রহমান বাবু- শুনতে কানে লাগবে। হয়তো মিলাতেও কষ্ট হবে। তবে সত্য হলো, মাশরাফির কাছে শেরে বাংলা, জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম কিংবা সিলেট স্টেডিয়াম যা, ওভাল, কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেন, ব্রিস্টল, টনটন, সাউদাম্পটন, নটিংহ্যাম আর বার্মিংহ্যাম- সবই এক।

কারণ প্রাণখোলা-মিশুক প্রকৃতির মাশরাফি দেশে যেমন, বিশ্বকাপের বড় মঞ্চ আর কঠোরতম নিরাপত্তা এবং আইন কানুন ও নিয়ম-নীতির মধ্যেও ঠিক তেমনি।

শুনে অবাক হতে পারেন, মাশরাফি বিন মর্তুজা হলেন বিশ্বকাপে একমাত্র ক্রিকেটার ও অধিনায়ক, যিনি বিশ্বকাপ প্রতি ম্যাচের আগের দিন সংবাদ সন্মেলনে কথা বলা ছাড়াও নিজ দেশের সাংবাদিকদের সাথে, বিশেষ করে সমবয়সী এবং বন্ধু স্থানীয়দের সাথে ঠিক একান্তে কথা বলেছেন। অবশ্য পুরোটাই না লেখার শর্তে। ‘অফ দ্যা রেকর্ডে’।

বিশ্বকাপের নিরাপত্তার কড়াকড়ি আর নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা বেষ্টনির মধ্যেও প্রতি ম্যাচের আগেরদিন যিনি অন্তত ১০ থেকে ১৫ মিনিট মিনিট স্বদেশী সাংবাদিকদের সাথে একান্তে আড্ডা দিয়েছেন। খুনসুটি করেছেন। বন্ধু স্থানীয়দের সাথে হালকা চটুল কথা-বার্তা বিনিময় করেছেন, ঠিক দেশে যেমন করেন; তেমনি। এবং সেটা আফগানিস্তানের সাথে ম্যাচের আগের দিনও করেছেন। সেদিনও কিন্তু মাশরাফি প্রেস কনফারেন্সে কথা বলতে আসেননি। অথচ বাংলাদেশের সাংবাদিকদের সাথে আড্ডাটা ঠিকই ছিল।

সেই মাশরাফি আজ প্রেস কনফারেন্সেও আসলেন না। সাংবাদিকদের সাথে অন্য দিনের মত জমজমাট আড্ডাও হলো না। একটু বৈসাদৃশ্য ঠেকছে বৈকি। কথায় বলে ‘ঝড়ের আগে প্রকৃতি নাকি হঠাৎ ক্ষণিকের জন্য হলেও নিস্তব্ধ হয়ে যায়।’ খোলামেলা মানুষ যখন চুপচাপ হয়ে যান, নিজেকে খানিক গুটিয়ে নেন- তখন অন্যরকম চিন্তা আসে বৈকি!

প্রাণখোলা, মিশুক, আলাপি আর আড্ডাপ্রিয় মাশরাফির আজকে নিজেকে খোলসবন্দী করে ফেলা, তাই নানা কৌতুহলি প্রশ্ন, গুঞ্জন, ফিসফাসের জন্ম দিয়েছে।

শুধু সাংবাদিকের সাথেই নয়। টিম ম্যানেজমেন্ট সূত্রেও জানা গেছে, অন্য দিনের চেয়ে মাশরাফি একটু কম কথা বলেছেন। বাড়তি আবেগ তাকে আচ্ছন্ন করতে না পারলেও একটু ধীরস্থির মনে হয়েছে তাকে। অন্য দিনের মত গল্প-আড্ডায় মেতেও উঠেছেন কম।

কেমন এমন হলো? মাশরাফি হঠাৎ আজ নিজেকে খোলসবন্দী করলেন কেন? তবে কি কাল কোন বড় ধরনের ঘটনা ঘটতে যাচ্ছে? আগের মত বিনা মেঘে বজ্রপাত ঘটবেন না তো? সেই ২০১৭ সালের ৪ এপ্রিলের মত অবসরের ঘোষণা (টি-টোয়েন্টিতে) দিয়ে বসবেন না তো আবার?

মনে আছে, দু’বছর আগে ৪ এপ্রিল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচ খেলার আগে বলেছিলেন, ৬ এপ্রিলই হবে আমার শেষ টি টোয়েন্টি ম্যাচ। হুট করে কাল অবসরের ঘোষণাটাও দিয়ে বসবেন নাতো? অনেকেই এমনটাই ভাবছেন; কিন্তু ভিতরের খবর, মাশরাফি এবার আর এমন কিছু করবেন না।

আর করার কারণও নেই। কারণ তিনি তো আগে ভাগেই জানিয়ে দিয়েছেন, খেলা চালিয়ে যাবেন। হয়তো দেশের মাটিতে নিজের শেকড়ে অগণিত ভক্ত-সুহৃদদের সামনে ঘটা করে অবসর নেবেন।

কিন্ত সেটাই শেষ কথা নয়। আরও কথা আছে। হঠাৎ লর্ডসের বাতাসে অন্য রকম গুঞ্জন! মাশরাফি কি কাল পাকিস্তানের সাথে শেষ ম্যাচটা খেলবেন? এমন একটি প্রশ্ন, গুঞ্জন হঠাৎ করেই লর্ডসের বাতাসে ভেসে বেড়ালো।

কিন্তু সে গুঞ্জনের সত্যতা কতটা? মাশরাফি সত্যিই ৫ জুলাই পাকিস্তানের সাথে শেষ ম্যাচ খেলবেন না? ভারতের সাথে ২ জুলাই বার্মিংহামের এজবাস্টনে হওয়া ম্যাচটিই তাহলে তার শেষ বিশ্বকাপ ম্যাচ হয়ে গেছে?

এমন গুঞ্জন শোনা যাচ্ছেই। যে ম্যাচকে ভাবা হচ্ছে, বিশ্বকাপে তার শেষ ম্যাচ, আগামীকাল ৫ জুলাই পাকিস্তানের সাথে সেই ঐতিহাসিক ম্যাচটি খেলবেন না মাশরাফি!

তা কি করে হয়? মেলানো কঠিন। তবে ‘দুয়ে দুয়ে চার মেলানোর মত কিছু লক্ষণ কিন্তু মিলে গেছে। মাশরাফি অনুশীলন করেননি। ম্যাচের আগে সংবাদ সন্মেলনেও কথা বলেননি। অন্য দিনের মত সাংবাদিকদের সাথে খানিকক্ষণের আড্ডায়ও মেতে ওঠেননি। নিরবে-নিভৃতে লর্ডসে এসে প্র্যাকটিসের পুরো সময় ডেসিং রুমে কাটিয়ে ফিরে গেছেন হোটেলে।

এর সবগুলোকে যোগ করলে গুঞ্জনকে ভিত্তিহীন ভাবার যুক্তিও যে কম! কিন্তু কেউ সেভাবে জানাতে পারেননি কেন মাশরাফির কাল না খেলার সম্ভাবনা আছে? ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজন, মিডিয়া ম্যানেজার রাবিদ ইমামের কেউই না। তবে টিমের চারপাশে একটা গুঞ্জন অবশ্য আছে।

তাহলো, মাশরাফি আসলে হ্যামস্ট্রিং ইনজুরি নিয়েই বিশ্বকাপ খেলেছেন। নিজে কখনো হ্যামস্ট্রিং ইনজুরির ধরণ সম্পর্কে প্রকাশ্যে একটি কথা না বললেও ভিতরের খবর, তার হ্যামস্ট্রিং ইনজুরি কিন্তু একদম ছোট-খাট নয়। ‘গ্রেড টু টি-আর।’ যার প্রাথমিক চিকিৎসা একটাই- অন্তত সপ্তাহ তিনেকের পরিপূর্ণ বিশ্রাম।

কিন্তু মাশরাফি সেই ইনজুরি নিয়ে খেলে যাচ্ছেন। যে কারণে বিশ্বকাপে বলের ধারও গেছে কমে। যেহেতু পাকিস্তানের সাথে ম্যাচটি গুরুত্ব হারিয়েছে। এখন শুধুই আনুষ্ঠানিকতা। তাই মাশরাফি কাল শেষ ম্যাচে নাকি বিশ্রামে থাকার চিন্তা ভাবনা করছেন।

তার ভাবনাটি নাকি এমন, যেহেতু ইনজুরি ভোগাচ্ছে। আর শেষ ম্যাচটিও গুরত্ব হারিয়েছে। তাই শেষ ম্যাচ না খেলে বিশ্রামে কাটালে ক্ষতি কি? প্রশ্ন হচ্ছে সত্যিই মাশরাফি অমন ভাবছেন কি না? আর ভাবলে কেনইবা এ ম্যাচে। ইনজুরি ভোগালেতো আরও আগেও এক ম্যাচ না খেলে বিশ্রাম নেয়া যেত? তাই প্রশ্ন কিন্তু ডালপালা গজাচ্ছে। মাশরাফির এমন ভাবনা তাই সংশয়েরও জন্ম দেয়।

এদিকে আরো একটি খবরও শোনা যাচ্ছে। তাহলো, হ্যামস্ট্রিং ইনজুরি নিয়ে খেলে নিজের মানে পারফরম করতে পারা নয়; নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দু’একজন শীর্ষ কর্তা আকার ইঙ্গিতে বলেছেন, ফিট মাশরাফির সাথে এই মাশরাফির যে বিস্তর ফারাক। মাশরাফির এই অনুজ্জ্বলতা আর নিষ্পৃহতা টিম বাংলাদেশকে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে।

বোর্ড কর্তাদের ওই চিন্তা-ভাবনার কথাটি হয়ত মাশরাফির কানে গিয়ে থাকতেও পারে। আর সে কারণে যদি মাশরাফি অভিমানে, মনের দুঃখে বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচ না খেলেন, সেটা যে রীতিমত ‘ট্র্যাজেডি’ হয়ে থাকবে। এখন প্রশ্ন হলো, সারা জীবন দেশের জন্য সর্বস্ব দিয়ে একটি বিশ্বকাপে হ্যামস্ট্রিং ইনজুরি নিয়ে খেলে নিজেকে মেলে ধরতে না পারার কারণে মাশরাফিকে দোষারোপ করা কি ঠিক?

বাংলাদেশের ক্রিকেটে অধিনায়ক আর বোলার মাশরাফির যে অবদান, বিভিন্ন সাফল্যে তার যে বল হাতে অগ্রণী ভূমিকা- সেটা কি সাত ম্যাচে একটি মাত্র উইকেট পাওয়ায় ধুয়ে মুছে গেছে?

এদিকে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন, বিসিবির অন্যতম শীর্ষ কর্মকর্তা মাহবুব আনাম, পরিচালক এনায়েত হোসেন সিরাজ, আহমেদ সাজ্জাদুল আলম ববি, আকরাম খান, ইমসমাইল হায়দার মল্লিক, লোকমান হোসেন ভুইয়া, হানিফ ভুঁইয়া এ ম্যাচ দেখতে লন্ডনে।

মাশরাফি যদি তাদের সবার উপস্থিতিতে সত্যিই অভিমানে তার বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচ না খেলেন, সেটা কেমন দেখাবে? সত্যিই যদি মাশরাফি কাল খেলতে না চান, তাহলে হয়তো বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন বোর্ডের শীর্ষ কর্তাদের সাথে নিয়ে নিশ্চয়ই মাশরাফির সাথে বসে কথা বলে তার সিদ্ধান্ত পাল্টানোর অনুরোধ করে দেখবেন। সে ক্ষেত্রে যদি সত্যিই মাশরাফির খেলা নিয়ে কোন সংশয় থাকে, তাও মিটে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.







পাঠক

Flag Counter



Developed By : ICT SYLHET

Developer : Ashraful Islam

Developer Email : programmerashraful@gmail.com

Developer Phone : +8801737963893

Developer Skype : ashraful.islam625

error: Content is protected !!