ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ফুটবলে কাঁকশিয়ালীর জয়

প্রকাশিত: ৫:২৯ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৬, ২০১৯ | আপডেট: ৫:২৯:অপরাহ্ণ, জুলাই ২৬, ২০১৯

ঢাবি প্রতিনিধি:

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত সাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জ উপজেলার শিক্ষার্থীদের সংগঠন ‘কাঁকশিয়ালী’ ও তালা উপজেলার শিক্ষার্থীদের সংগঠন ‘তিমিরান্তিক’ এর মধ্যকার একটি জমজমাট প্রীতি ফুটবল ম্যাচ ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে উপিস্থিত ছিলেন, বৈদেশিক বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত যুগ্ম সচিব জনাব শেখ রফিকুল ইসলাম, বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিসে দায়িত্বপ্রাপ্ত এসিস্ট্যান্ট সুপারিন্টেন্ডেন্ট অফ পুলিশ জনাব তাপস কর্মকার, কাজী ওয়াজেদ অফিসার ইনচার্জ সুত্রাপুর থানা ঢাকা, রেজাউল ইসলাম রেজা সাধারণ সম্পাদক ঢাকাস্থ তালা উপজেলা সমিতি, মোঃ আব্দুর রহমান সাংগাঠনিক সম্পাদক ঢাকাস্থ তালা উপজেলা সমিতি, মারুফ হাসান ঢাকা ব্যাংকের প্রিন্সিপাল অফিসার, কাঁকশিয়ালীর প্রতিষ্ঠাতা ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক কাজী ফারুক হোসাইন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সদ্য পদপ্রাপ্ত সহ সভাপতি খালিদ হাসান নয়ন ও সহ সম্পাদক জনাব ফারুক হোসেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি দিদারুল ইসলাম, এছাড়াও উক্ত প্রোগ্রামে উপস্থিত হওয়ার কথা ছিল ব্যাংক এশিয়ার লিগ্যাল উইং এর ভাইস প্রেসিডেন্ট ইলিয়াস হায়দার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুষ্টি ও খাদ্য বিজ্ঞান অনুষদের সহকারী গ্রন্থাগারিক তাপসী ব্যানার্জি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক নাহিদ হাসান শাহিন এবং ধর্ম বিষয়ক উপসম্পাদক জামান শাহেদ কিন্তু বৈরি আবহাওয়ার কারণে উপস্থিত হতে পারেন নি।উপস্থিত ছিলেন কাঁকশিয়ালীর প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি আনিম ইরতিজা শোভন ও প্রতিষ্ঠাকালীন সাধারণ সম্পাদক শেখ শাহ-আলম এবং সঞ্চালনায় ছিল কাঁকশিয়ালীর বর্তমান সভাপতি মোস্তাকিন আরাফাত রিয়াজ ও সাধারণ সম্পাদক পাপিয়া আফরিন প্রিয়া। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন মাস্টারদা সূর্যসেন হল ছাত্রলীগের সহ সভাপতি রুহুল কুদ্দুস সজীব, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ সম্পাদক শামীম হোসেন, তিমিরান্তিকের সভাপতি রাজীব ঘোষ ও সাধারণ সম্পাদক আসাদ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ সভাপতি কামাল হোসেন।
বিকাল ৩.৩০ টা থেকে ফুটবল ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয়। ম্যাচেরএ প্রথমার্ধে কাঁকশিয়ালী১-০ গোলে এগিয়ে থাকে এবং শেষার্ধে ৫-০ গোলে কাঁকশিয়ালী জয়ী হয়।
ম্যাচ শেষে বক্তৃতা দানকালে বক্তারা পারস্পারিক সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতি গঠনের উপর গুরত্বারোপ করে সাতক্ষীরা জেলার সামগ্রিক উন্নয়নের উপর জোর দেন। এবং তারা সংঠনের সহযোগিতা ও পৃষ্ঠপোষকতার অঙ্গীকার প্রদান করেন। পুরুষ্কার বিতরণ ও ট্রফি প্রদানের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।