পৃথিবীর ইতিহাসে বাংলাদেশই কেবল অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির গতি প্রতিবছরই উর্ধমুখীঃমন্ত্রী টিপু মুন্সী এমপি

প্রকাশিত: ৬:৩০ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১২, ২০১৯ | আপডেট: ১:১৬:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৩, ২০১৯

লন্ডন রিপোর্টার্স ইউনিটি । সহযোগিতায় চ্যানেল এইট । লন্ডন। ১২ অক্টোবর, ২০১৯। আপডেট, ১৯ঃ০৪।বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুন্সী এমপি বলেছেন, পৃথিবীতে বাংলাদেশই একমাত্র দেশ, যার অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি প্রতিবছরই বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিগত কয়েক বছর আমরা ৬ এর উপরে প্রবৃদ্ধি অর্জন করলেও বর্তমানে আমাদের প্রবৃদ্ধি ৮ এর ঘরে পৌছেছে। তিনি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার টার্গেট হলো আমাদের গ্রোথ ডাবল ডিজিটে উন্নীত করা।

বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুন্সী এমপি আজ লন্ডনে যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে এসব কথা বলেন।

এসময় মন্ত্রী বলেন, পৃথিবীর যে জায়গায়ই যাচ্ছি, যে সব সাংসদ, মন্ত্রীদের সাথে দেখা হচ্ছে, কথা হচ্ছে, তারা একটা কথাই জানতে চান, বাংলাদেশ ও শেখ হাসিনার কাছে কী এমন জাদুর বাক্স আছে, যাতে বাংলাদেশ এমন অভাবিত উন্নয়ন করছে প্রতিবছর।

যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সভাপতি সুলতান মোহাম্মদ শরীফের সভাপতিত্বে আয়োজিত আলোচনা সভায় মন্ত্রীকে স্বাগত জানিয়ে সভা সঞ্চালনা করেন যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক।

সভায় মন্ত্রী আরো বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা নিরবচ্ছিন্নভাবে দেশের উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি দিনে ১৭/১৮ ঘন্টা কাজ করেন এবং আমাদের মন্ত্রীদেরকে আরো বেশী বেশী কাজ করার জন্য অনুপ্রাণীত করেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, তার অফিসের স্টাফ এবং কর্মকর্তারাও এমনভাবে দেশের জন্য এখন কাজ করছেন, তারা সকাল ৯টায় অফিসে আসলেও রাত ১০টার আগে কেউই বাসায় যেতে পারেননা।

মন্ত্রী বলেন, লন্ডনে আসার আগেও তিনি প্রায় ১লক্ষ টন চাল রফতানির অর্ডার করে আসছেন। অথচ এক সময় আমাদের চালের ঘাটতি ছিল, চাল আমদানি করতে হতো।

তিনি বলেন, দেশের চাহিদা ৭০লক্ষ টন আলু উৎপাদনের চাহিদা থাকলেও এখন আমরা এবছর ১.৩০লক্ষটন আলু উৎপাদন করেছি। অতিরিক্ত আলু আমরা রফতানি করতে পারছি।

মন্ত্রী তার নিজের এলাকার তুলনামূলক বিশ্লেষণ করে বলেন, এখন মানুষের স্বাস্থ্য, অর্থনৈতিক অবস্থায় ব্যাপক পরিবর্তন ও উন্নয়ন সাধিত হয়েছে।

মন্ত্রী প্রবাসিদের দেশের একেকজন এম্বাসাডর হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, আপনারা আপনাদের নেটওয়ার্কে একটাই ম্যাসেজ দিন, বাংলাদেশ এখন পৃথিবীর মধ্যে সবচাইতে লাভজনক ব্যবসা ও বিনিয়োগের জায়গা। সবধরনের ফ্যাসিলিটিজ সহ আধুনিক উন্নতমানের ইনফাস্ট্রাকচারের সুলভ সুযোগ সুবিধা বাংলাদেশ সরকার দিচ্ছে।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগ নেতা নঈমুদ্দিন রিয়াজ, অধ্যাপক আবুল হাশেম, শামসুদ্দিন মাস্টার, হরমুজ আলী, আব্দুল আহাদ , শারব আলী, শাহ শামীম, পীর কুতুব উদ্দিন, মল্লিক শাকুর ওয়াদুদ, যুবনেতা জোবায়ের আহমেদ, ছাত্রনেতা সারোয়ার কবির, জামিল আহমেদ, সৈয়দ ইসলাম , তারেক আহমেদ  সহ আরো অনেকে।