লন্ডনে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর উদযাপন কমিটি গঠণঃসাইদা পেট্রন,সুলতান কার্যকরী আহবায়ক, ফারুক সদস্য সচিব

১৭ ই মার্চ, মঙ্গলবার: জাতির পিতার জন্মদিনের অনুষ্ঠান ও সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা।

প্রকাশিত: ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০ | আপডেট: ১২:২৪:পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০

টাইমস রিপোর্ট । লন্ডন অফিস । শতাব্দীর শ্রেষ্ট বাঙালি, জাতির জনক, বাঙালি স্বাধীনতা ও মুক্তিসংগ্রামের অগ্নিপুরুষ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবির রহমানের জন্মশতবার্ষিকী যুক্তরাজ্যে উদযাপনের লক্ষে জন্মশতবার্ষিকী নাগরিক কমিটির উদ্যোগে গতকাল দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

পূর্ব লন্ডনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লন্ডনস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশনার সাইদা মুনাকে পেট্রন, সাংবাদিক আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরীকে আহবায়ক, যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের প্রেসিডেন্ট সুলতান শরীফকে কার্যকরী আহবায়ক, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুককে  সদস্য সচিব করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, কমিউনিটি, ব্যবসায়ী ও পেশাজীবি সংগঠন ও ব্যক্তি-গোষ্ঠির সমন্বয়ে যুক্তরাজ্যে গঠন করা হয়েছে নাগরিক উদযাপন কমিটি। কমিটির পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হয়েছে বছরব্যাপী কর্মসূচী।

বছরব্যাপী কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে:

১৭ ই মার্চ, মঙ্গলবার: জাতির পিতার জন্মদিনের অনুষ্ঠান ও সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা।

২৩শে মার্চ: ব্রিটিশ পার্লামেন্টে হাউস অব লর্ডসের সদস্য, এমপি ও মন্ত্রীদের নিয়ে অনুষ্ঠান- ‘ব্রিটেন-বাংলাদেশ-বঙ্গবন্ধু ঐতিহাসিক সম্পর্ক।’ প্রধান অতিথি – পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন। বিশেষ অতিথি – পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো: শাহরিয়ার আলম।

ব্রিটেনের বিভিন্ন শহরে বঙ্গবন্ধুকে নিবেদন করে আলোচনা অনুষ্ঠান

১৩ এপ্রিল সোমবার: নর্থওয়েস্ট (ম্যানচেষ্টার)

১৯ এপ্রিল রবিবার: ‘সাহিত্য, সংস্কৃতিচর্চায় বঙ্গবন্ধু’-সাংবাদিক, বুদ্ধিজীবি, লেখক,কবি, সাহিত্যিকদের নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠান।

৪ মে সোমবার: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী জাতীয় উদযাপন কমিটির ইফতার মাহফিল।

৮ জুন সোমবার: আলোচনা অনুষ্ঠান, মিডল্যান্ড, বার্মিংহাম।

১৫ জুন সোমবার: ওয়েলস, কার্ডিফ।

২২ জুন সোমবার: নর্থইস্ট (নিউক্যাসেল, সান্ডারল্যান্ড )

২৯ জুন সোমবার: পোর্টসমাউথ, ডরসেট, ইপসুইস, সাউথামটন।

৫ জুলাই রবিবার: বিলেতে বেড়ে উঠা বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত বাঙালি বংশোদ্ভুত নতুন প্রজন্মের ছেলে মেয়েদের নিয়ে অনুষ্ঠান- ‘জাতিরাষ্ট্র বিনির্মাণ ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’। অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি হল, অক্সফোর্ড। সম্ভাব্য আলোচক: ড. গওহর রিজভী, মো: শাহরিয়ার আলম এমপি ও ড. ফৌজিয়া শরীফ প্রমূখ।

১৫ই আগস্ট, শনিবার: জাতীয় শোক দিবস-মিলাদ ও দোয়া মাহফিল এবং জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পন।ব্রিটেনের হোমলেস ও গরীব মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ।

১৭ আগস্ট সোমবার: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাত বার্ষিকীর আলোচনা সভা।

সেপ্টেম্বর মাসে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন, জননেত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর আলোচনা সভা।

২৬ অক্টোবর সোমবার: বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী, কারাগারের রোজনামচা থেকে শতকন্ঠে আবৃত্তি ও পাঠ।

১৭ নভেম্বর মঙ্গলবার: ব্রিটেনে বসবাসরত মূলধারার বাঙালি ব্যবসায়ীদের নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠান-’বঙ্গবন্ধুর বাণিজ্য ভাবনা’।

১৬ ডিসেম্বর বুধবার: বাংলাদেশের মহান বিজয় দিবস উদযাপন।

৪ঠা জানুয়ারি’ ২০২১: ব্রিটেনে বসবাসরত বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রাক্তণ নেতাকর্মীদের নিয়ে বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠান-‘ছাত্রলীগ ও বঙ্গবন্ধু সম্পর্ক’।

১০ই জানুয়ারী’ ২০২১: ৮ই জানুয়ারী জাতির পিতার লন্ডন প্রত্যাবর্তন উপলক্ষে আলোচনা অনুষ্ঠান।

১৮ই জানুয়ারী’ ২০২১: ব্রিটেনের বিভিন্ন কাউন্সিল থেকে নির্বাচিত বাঙালি কাউন্সিলারদের নিয়ে অনুষ্ঠান-‘জননেতা থেকে বিশ্বনেতা ; বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’।

১৭ই মার্চ’ ২০২১: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১তম জন্মবার্ষিকীর আলোচনা সভা-‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে দেশরত্ন, জননেত্রী শেখ হাসিনার ভূমিকা’।

 

কমিটির কার্যকরী আহবায়ক সুলতান শরীফের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব সৈয়দ ফারুকের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত ঘোষণা পাঠ করেন নাগরিক উদযাপন কমিটির যুগ্ম সদস্য সচিব শাহ শামীম আহমেদ। লিখিত ঘোষণায় তিনি বছরব্যাপী কর্মসূচীর বিস্তারিত তথ্যও প্রদান করেন সাংবাদিকদের।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয় বাংলাদেশ সরকার বঙ্গবন্ধুর জন্মতিথি ঐতিহাসিক ১৭ই মার্চ ২০২০ সাল থেকে ১৭ই মার্চ ২০২১ সালকে ‘মুজিববর্ষ’ হিসেবে ঘোষণা করেছে। বিশ্বেব ১৯৫টি দেশে ঐতিহাসিক মুজিববর্ষ পালিত হবে। এরই অংশ হিসেবে যুক্তরাজ্যেও এই নাগরিক কমিটির অধিনে বছর ব্যাপী অনুষ্টান মালা পালন করা হবে। এর মধ্যে, ব্রিটিশ পার্লামেন্টে সেমিনার, অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটিতে সেমিনার, নতুন প্রজন্মেও ব্রিটিশ বাংলাদেশীদের নিয়ে অনুষ্ঠানসহ ব্রিটেনের একাদিক শহরে অনুষ্ঠান আয়োজন করা হবে বলে জানানো হয়।

ঘোষণায় বলা হয়, ‘মুক্তিযুদ্ধ থেকে শুরু করে বাংলা ও বাঙালির প্রতিটি আন্দোলন সংগ্রামে বিলেত প্রবাসী বাঙালিরা সক্রিয় অংশগ্রহনের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের সাথে ওতোপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছেন। এই পরিবারের সাথে রয়েছে বিলেত প্রবাসীদের আত্মার সম্পর্ক। আমরা সবাই বাংলাদেশ নামক একটা পরিবারের সন্তান। তাই আমরা জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনে কোনভাবে পিছিয়ে থাকতে পারি না। আমরা বিলেত প্রবাসীরাও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সমাজের সকল স্তরের মানুষকে নিয়ে মুজিববর্ষ উদযাপনের মহাযজ্ঞের গর্বিত অংশিদার হতে চাই।’ নব গঠিত নাগরিক কমিটির যুগ্ম আহবায়ক ও সদস্যদের নামও ঘোষণা করা হয় সংবাদ সম্মেলনের ঘোষণায়।

বছরব্যাপী কর্মসূচীর বিস্তারিত তথ্য দিয়ে ঘোষণায় জানানো হয় ব্রিটিশ পার্লামেন্ট ও অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটিসহ বিলেতের বিভিন্ন শহরে অনুষ্ঠিত হবে মুজিব শতবর্ষ উদযাপন অনুষ্ঠান। পার্লামেন্ট ও অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রী, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও প্রধান মন্ত্রীর উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভীসহ ব্রিটিশ রাজনীতিক এবং এমপিদের উপস্থিত থাকবেন।