শেডওয়েল মসজিদ ফজর থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা

করোনা ভাইরাস

প্রকাশিত: ১১:২৭ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৯, ২০২০ | আপডেট: ৩:০৫:অপরাহ্ণ, মার্চ ২০, ২০২০

লন্ডন টাইমস, লন্ডন অফিস। করোনা ভাইরাসের তান্ডবে সরকারের গৃহীত গাইড লাইন অনুসারে শেডওয়েল মসজিদ শুক্রবার ফজরের নামাজ থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

আজ এশার নামাজের পর ইমাম মাওলানা সিরাজুল ইসলাম সাদ মুসল্লীদের সামনে এই ঘোষণা দেন।

এর পর ফেসবুকে এক ষ্ট্যাটাসে মাওলানা সিরাজুল ইসলাম সাদ লিখেন, ” আজ ইশার নামাজের ইমামতির পর যখন আমার প্রিয় মুসল্লীগণের সামনে দাঁড়িয়ে ঘোষনা করেছিলাম -কাল ফজর থেকে আর মসজিদের দরজা খোলা হবেনা ,মসজিদে অনিদৃষ্ট কালের জন্য জামাতে নামাজ ,বাচ্চাদের মক্তব ও নিয়মিত অন্যান্য কর্মসূচী বন্ধ থাকবে ।তখন হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হয়েছিল ।আমার সাথে আমার প্রিয় মুসল্লীগণ ও হতভম্ব হয়ে আমার দিকে থাকিয়ে অশ্রসজল নয়নে এক বিষাদময় শ্বাস ফেলেছেন ।এ মসজিদে কতদিন কত ঘোষনা দিয়েছি তবে আজকের মত কষ্ট নিয়ে কখনো এরকম ঘোষনা দেইনি ।মনে অশান্তি আসলে মানুষ শান্তির জন্য মসজিদে যায়।দু রাকাত নামাজ পড়ে মহীয়ানেক নিকট প্রার্থনা করে আজ সেই রহমতের ঘরে তালা মেরে আসতে হল “করোনা ভাইরাসের “কারণে যা কখনো কেউ ভেবেছেন বলে মনে হয়নি ।মুসল্লীদের নিয়ে দোয়ার সময় কান্নার যে আওয়াজ আর চোখের পানি মুসল্লীগণ ঝড়িয়েছেন তা আমার জীবনে আর এমন দেখিনি ।”


“হে আমাদের প্রভু! আমরা তোমার ঘরে এসে জামাতে নামাজ পড়তে চাই ।তুমি ক্ষমা করো দয়াময়।আমাদের পাপগুলো মাফ করে দাও ।এ জমিন থেকে তোমার গজব তুলে নাও ।আর আমাদের কে রক্ষা করো ।তোমার রহমতের মায়াবী কোলে আমাদের ঠাঁই দাও।মসজিদ ছেড়ে আসার অসহ্য যন্ত্রনায় হৃদয়ে রক্তক্ষরন হচ্ছে ।হে আল্লাহ আমার সব প্রিয় মুসল্লী সহ বিশ্ববাসীকে হেফাজ করো ।এমন মৃত্যু দিওনা যে মৃত্যুর পর কেউ জানাজা পড়তে যাবেনা ।তুমি আমাদের একমাত্র অভিভাবক !তুমি যদি মাফ না করো আমাদের আর যাওয়ার যায়গা নাই ।”

শেডওয়েল মসজিদ কমিটি এবং প্রধান ইমাম খতীব মাওলানা নূরুল ইসলাম সূত্রে জানা গেছে, সাময়িকভাবে পরিস্থিতির আলোকে তারা মসজিদ বন্ধ করে দিয়েছেন। তারা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষন এবং মসজিদ বন্ধের সিদ্ধান্ত রিভিউ করার সুযোগ রয়েছে।

তারা মুসল্লীদের অসুবিধার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন এবং মুসল্লীগণ এবং পরিবার ও মুসল্লিম উম্মাহর সুস্থ্যতা আর সমূহ মুসীবত থেকে আল্লাহর দরবারে আশ্রয় এবং পানাহ ও মাগফেরাত চেয়েছেন, সকলের কাছেও একে অন্যের জন্য দোয়া চেয়েছেন।