করোনা মানে মৃত্যু নয়-বাচতে হলে জানতে হয়”

প্রকাশিত: ৮:০৩ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৪, ২০২০ | আপডেট: ৮:০৩:অপরাহ্ণ, মার্চ ২৪, ২০২০

শি-বিদেশি মিডিয়া হাউজগুলোকে গত মাস দেড়েক ধরে খুব সুক্ষ্মভাবে পর্যাবেক্ষণ করে যাচ্ছি। দেশিয় মিডিয়া হাউজের কথা অবশ্য ধর্তব্যের বাইরে। কারণ আমাদের দেশে আলহামদুলিল্লাহ করোনা তেমন বেশি আঘাত হানতে পারেনি। তারপরও দেশিয় মিডিয়া হাউজগুলোতে মোটামুটি চলছে গণসচেতনতামুলক বিভিন্ন প্রোগ্রাম। কিন্তু বর্তমানে এই দেশের জনগণের দৃষ্টি দেশিয় মিডিয়া হাউজগুলোর চেয়ে বিদেশি মিডিয়া হাউজগুলোতে বেশি। বিশেষ করে চীনের মিডিয়া হাউজগুলোর প্রতি এই দেশের জনগণের আকর্ষণ বেশি। কারণ করোনা ভাইরাসটি চীন থেকে শুরু হলে ও কিন্তু তারা মোকাবেলা করতে মোটামুটি সক্ষম হয়েছে। আমাদের দেশের মিডিয়া হাউজগুলো করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা জানানোর পাশাপাশি হাজার হাজার মানুষ করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরছে এই তথ্য গুলো যদি আমাদের দেশিয় মিডিয়া হাউজগুলো আমাদের মাঝে সঠিকভাবে আমাদের তুলে ধরে তাহলে আর আমাদের দেশের মানুষ গুলো তেমন বেশি আতংকিত হবে না এবং মিথ্যা গুজবে কান দেবে না। যদি দেশিয় মিডিয়া হাউজ গুলো থেকে যদি আমাদের দেশের সর্বস্তরের জনসাধারণ সঠিক তথ্য এবং করোনা থেকে বাচার জন্য উৎসাহ পাই তাহলে আমাদের দেশের মানুষ গুলোর ভিতরে থাকা ভয় এবং আতংকিত থেকে বেরিয়ে আসতে পারবে। এবং করোনার ব্যাপারে মিথ্যা গুজব থেকে সর্বস্তরের জনসাধারণ সচেতন হবে। কারণ করোনাকে মানুষ মৃত্যু মনে করছে তাই মানুষ যার কাছ থেকে যাই শুনে তাই বিশ্বাস করছে এবং মিথ্যা গুজবে কান দিচ্ছে। মিডিয়া হাউজ গুলোর পাশাপাশি আমাদেরকে সচেতন হতে হবে। অপ্রয়োজনীয় বাহিরে বের হবেন না। যদি বিশেষ কোন কাজে বের হন তাহলে মাস্ক পড়তে হবে, বারেবারে হাত ধুতে হবে, লোকারণ্য এলাকা এড়িয়ে চলতে হবে। এবং সাবধান থাকতে হবে। কিন্তু আতংকিত হওয়া যাবে না। আতংকিত হলে স্বাভাবিক জীবনযাপনে ভীষণভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়বেন। তখন করোনায় আপনার মৃত্যু সম্ভাবনা না থাকলে ও আতংকিত তৈরি ডিপ্রেশানে আপনার মৃত্যুর সম্ভাবনা কিন্তু হুড়মুড় করে বেড়ে যাবে। তাই চলুন গুজবে কান না দিয়ে, আতংকিত না হয়ে সকাল সন্ধ্যার যিকির গুলো নিয়মিত করি। দৈনিক পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ি। ভয় না পেয়ে আল্লাহর উপর ভরসা করি এবং সচেতন হই।

লেখক:ওবাইদুর রহমান রিদুয়ান ৯ম বিজ্ঞান বায়তুশ শরফ জাব্বারিয়া একাডেমি, ককক্সবাজার।